Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০২:৩৬
মজুদে শাস্তির বিধান রেখে পেট্রোলিয়াম বিল পাস
নিজস্ব প্রতিবেদক
মজুদে শাস্তির বিধান রেখে পেট্রোলিয়াম বিল পাস

লাইসেন্স ছাড়া প্রেট্রোলিয়াম আমদানি, মজুদ, পরিবহন, বিতরণ, উৎপাদন, শোধন ও মিশ্রণ করা যাবে না। এ আইন লঙ্ঘন করলে ছয়মাসের কারাদণ্ড বা ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং একই অপরাধ পুনরায় সংঘটিত হলে দ্বিগুণ শাস্তির বিধান রেখে পেট্রোলিয়াম আইন-২০১৬ বিল সংসদে পাস হয়েছে। ডিপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদের একাদশ অধিবেশনের গতকালের বৈঠকে বিলটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। এর আগে বিলের ওপর আনীত জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনীর প্রস্তাবগুলো নাকচ হয়ে যায়। পরে কতিপয় সংশোধনীসহ সংসদে স্তিরকৃত বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। বিলটি ১০ ফেব্রুয়ারি সংসদে উত্থাপিত হয়েছিল। বিলে বলা হয়েছে, সরকারের অনুমোদন ক্রমে কোনো তেল বিপণন কোম্পানি প্রথম শ্রেণির পেট্রোলিয়াম ব্যবসা করার জন্য ডিলার নিয়োগ করতে পারবে। এ ছাড়া দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির পেট্রোলিয়াম ব্যবসার জন্য ডিলারের পরিবর্তে এজেন্ট নিয়োগ করতে পারবে। কোনোভাবেই লাইসেন্স ছাড়া প্রথম শ্রেণির পেট্রোলিয়াম আমদানি, পরিবহন, মজুদ বা বিতরণ করা যাবে না। তবে বিক্রির উদ্দেশ্য ছাড়া লাইসেন্স ব্যতীত ২৫ লিটার পরিমাণ প্রথম শ্রেণির পেট্রোলিয়াম মজুদ করার বিধান আইনে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া লাইসেন্স ছাড়া ২ হাজার লিটার পরিমাণ দ্বিতীয় ও তৃতীয় শ্রেণির মজুদ ও পরিবহন করা যাবে। কিন্তু তা এক হাজার লিটার পাত্রে সংরক্ষণ করতে হবে। একইভাবে লাইসেন্সধারী মোটরযান বা জ্বালানি ইঞ্জিনের জন্য ৯০ লিটার পেট্রোলিয়াম মজুদ ও পরিবহন করতে পারবে। বিলে বলা হয়েছে, ২৫ লিটারের বেশি মজুদ করতে হলে লোকালয়, বাসস্থান বা কর্মস্থলের বাইরে বিচ্ছিন্ন স্থানে করতে হবে।

১৬০টি দেশে যাচ্ছে বাংলাদেশি কর্মী : প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছেন, বিগত জোট সরকার আমলে বিশ্বের মাত্র ৯৬টি দেশে কর্মী পাঠানো হতো। বর্তমান সরকারের আমলে এ সংখ্যা বেড়ে ১৬০টিতে উন্নীত হয়েছে। একই সঙ্গে বিভিন্ন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০০৯ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৯১টি রিক্রুটিং এজেন্সির লাইসেন্স বাতিল এবং তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ১৮ কোটি ২১ লাখ ৭ হাজার ৯০০ টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করে ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, ২০১০ সাল থেকে গত জুন পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে ১৯ হাজার ৫৪৬ জন প্রবাসী বাংলাদেশির লাশ দেশে ফেরত আনা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow