Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৪১
কেবিনে কিশোরীকে গলা কেটে হত্যা
প্রতিদিন ডেস্ক

রাজধানীর সদরঘাটে পটুয়াখালীগামী একটি লঞ্চের কেবিনে এক কিশোরীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল বিকালে এই হত্যাকাণ্ডের পরপরই সন্দেহভাজন এক যুবককে ধরে পুলিশে দেন লঞ্চের কর্মচারীরা।

নিহত কিশোরীর নাম পারুল আক্তার (১৬)। তার বাড়ি ঢাকার কেরানীগঞ্জের আগানগরে। আটক যুবকের নাম আল মামুন। তিনি পুরান ঢাকার সরকারি কবি নজরুল কলেজের শিক্ষার্থী। খবর বিডিনিউজের

সদরঘাট পুলিশ ফাঁড়ির এসআই দেলোয়ার হোসেন বলেন, পটুয়াখালীগামী লঞ্চ ঈগল-৩ বিকালে সদরঘাটের ৭ নম্বর পন্টুনে ভেড়ানো হলে আল মামুন নামে ওই যুবক তৃতীয়তলার ৩০৮ নম্বর ডাবল কেবিনে ওঠে। মামুন ও তার বাবা-মা গ্রামের বাড়ি যাবে বলে লঞ্চের লোকজনকে জানিয়েছিল। ওই সময় মামুনের সঙ্গে ছিল না নিহত কিশোরী। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এক কেবিন বয় ৩০৮ নম্বর কেবিন থেকে রক্ত বের হতে দেখে অন্যদের ডাকেন। তখন কেবিন বয়রা জানালা খুলে কিশোরীর রক্তাক্ত দেহ দেখতে পায়।

এরপর তারা মামুনকে আটক করে পুলিশে খবর পাঠায়। কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) পারভেজ ইসলাম বলেন, ওই কিশোরীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়। কেবিন থেকে হত্যায় ব্যবহৃত চাকুটি উদ্ধার করা হয়েছে। মামুন জানিয়েছে, তিনি কবি নজরুল কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। মেয়েটির নাম পারুল আক্তার বলে জানা গেছে। আগানগরে তার বাবাকে খবর দেওয়া হয়েছে। কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড সে ব্যাপারে মামুনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow