Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১১
তাহের দিবসের আলোচনা
পরাজিত পক্ষই জঙ্গিবাদের পথ ধরেছে : ইনু
নিজস্ব প্রতিবেদক

কর্নেল তাহের দিবসের আলোচনা সভায় জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তি বসে নেই। এদের অনুসারী হিসেবে জনগণের প্রতিরোধের মুখে পরাজিত হয়েছেন খালেদা জিয়াও। এরপর তিনি ভোল পাল্টে গুপ্তহত্যা চালিয়েছেন। তাতে ব্যর্থ হয়ে এখন জঙ্গিবাদের পথ ধরেছেন।

গতকাল বিকালে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। ৪০তম কর্নেল তাহের দিবসের এ আলোচনা সভায় মূল আলোচক ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। আরও বক্তব্য দেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী এবং ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি, কর্নেল তাহেরের সহধর্মিণী লুত্ফা তাহের, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন,  বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, কবি অসীম সাহা, জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ঢাকা মহানগর জাসদের সমন্বয়ক মীর হোসাইন আনোয়ার, সেক্টরস কমান্ডার ফোরামের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবিব প্রমুখ। তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, কর্নেল তাহেরকে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে জিয়া ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করেছেন। জিয়া ইতিহাসের খলনায়ক, আর কর্নেল তাহের ইতিহাসের মহানায়ক। তিনি বীর বিপ্লবী। জিয়া শুধু কর্নেল তাহেরকে হত্যাই করেননি, তিনি সংবিধানকে ধ্বংস করেছেন, ইতিহাস বিকৃত করেছেন। তিনিই জামায়াতকে রাজনীতিতে আমদানি করেছেন। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ১৪ দল একটি আদর্শিক জোট। শুধুমাত্র নির্বাচনের জন্য বা ক্ষমতা ভাগাভাগির কারণে এ জোটের জন্ম হয়নি। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এ জোটের জন্ম হয়েছে। কর্নেল তাহের একটি আদর্শের নাম। তিনি ছিলেন সময়ের সাহসী বীর। এখনই সময় ভয়কে জয় করার।

রাশেদ খান মেনন বলেন, হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে কর্নেল তাহেরকে ঠাণ্ডা মাথায় খুন করা হয়েছে। তাহের একটি বীরের নাম। ফাঁসির কাষ্ঠে গিয়েও তিনি ভয় পাননি। আজও আমাদের সাহসী হতে হবে। আজ আমরা জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দ্বারা আক্রান্ত। ভয়কে জয় করে সাহস নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে আমাদের।

কর্নেল তাহেরের সহধর্মিণী লুত্ফা তাহের বলেন, আজকের এই দিনে জিয়াউর রহমান কর্নেল তাহেরকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করে। আজ এ প্রয়াণ দিবসে আমার চাওয়া— আমরা সবাই একসঙ্গে থাকতে চাই। আগের মতো একসঙ্গে কাজ করতে চাই। তৃণমূলে যে রক্তক্ষরণ হচ্ছে তা আমার হৃদয়েও হচ্ছে। তাই ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই।

প্রেসক্লাবে আলোচনা :  তাহের দিবসে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত আরেক অংশের আলোচনা সভায় জাসদ সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া বলেন, আমাদের ভবিষ্যৎ ও উন্নয়নের ধারা সুরক্ষার জন্য রাজনীতিতে জাতীয় ঐক্য দরকার।   মহান মুক্তিযুদ্ধে আমরা জয়লাভ করেছি, জঙ্গিদের বিরুদ্ধেও আমরা জয়লাভ করব। এ জন্য মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। গণঐক্যের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ নির্মূল হবে। শহীদ কর্নেল আবু তাহেরের অনুসারীরা জঙ্গি বিরোধী সংগ্রামে সম্পৃক্ত রয়েছেন।

এ সভায় বক্তব্য দেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পংকজ ভট্টাচার্য, মঈনউদ্দিন খান বাদল এমপি, জাসদ সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান এমপি, শহীদ কর্নেল তাহেরের সহধর্মিণী লুত্ফা তাহের এমপি, স্থায়ী কমিটির সদস্য ডা. মুস্তাক হোসেন, অ্যাডভোকেট শহীদুল হক প্রমুখ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow