Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:২৭
গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী ও ঠিকাদার মুখোমুখি অবস্থানে
টেন্ডার অনলাইনে প্রকাশের সিদ্ধান্ত
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে গণপূর্তের আগ্রাবাদ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী ও একই দফতরের শতাধিক ঠিকাদার মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছেন। সব টেন্ডার অনলাইনে প্রকাশ করার নির্দেশ আসার পর চট্টগ্রামে কয়েকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিকসহ ছাত্রলীগ নামধারী কয়েকজন প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন বলে জানান আগ্রাবাদ গণপূর্ত অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী আহমেদ আবদুল্লাহ নুর।

পক্ষান্তরে এ হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করে প্রকৃত সত্য ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহের চেষ্টা করছেন বলে জানান নিয়মিত ঠিকাদাররা। তবে এ বিষয়ে আগামীকাল চট্টগ্রামে তিন সদস্যের একটি তদন্ত টিম চট্টগ্রামে আসছে বলে জানান গণপূর্ত কর্মকর্তারা।

জানা যায়, নির্বাহী প্রকৌশলীর আচরণে গণপূর্ত অফিসে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মিয়াজী ট্রেডিং, এজি এন্টারপ্রাইজের মালিক যুবলীগের এক নেতার ভাগ্নে তমাল ও স্থানীয় কাউন্সিলরের নিকটাত্মীয় এবং সুলতানা কনস্ট্রাকশন পারভেজসহ বেশ কয়েকজন ক্ষুব্ধ হন। এতে মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাহী প্রকৌশলীর দফতর ঘেরাও করে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে। গণপূর্ত অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান মুন্সী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘এমন ঘটনা দুঃখজনক। বিষয়টি আমরা অবগত আছি। আগামী সপ্তাহের প্রথম দিকে বিষয়টি সুষ্ঠুভাবে তদন্তের জন্য তিন সদস্যের একটি টিম পাঠানো হচ্ছে। ’ তিনি বলেন, ‘আমরা সরকারি কাজ করি। কিন্তু আমাদের কাজের ওপর কেউ বাধার সৃষ্টি করলে কীভাবে কাজ করব। ’ তবে তদন্তের পরই বিষয়টি বিস্তারিত বলা যাবে বলে তিনি জানান।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এজি এন্টারপ্রাইজের মালিক আদনান শাহরিয়ার তমাল বলেন, ‘নির্বাহী প্রকৌশলী গোপনে কিছু ঠিকাদারের সঙ্গে আঁতাত করে কাজ করছেন। তাই শতাধিক ঠিকাদার অনাস্থা প্রকাশ করে গণস্বাক্ষর প্রদান করেন। ’ অভিযোগ অস্বীকার করে সুলতানা কনস্ট্রাকশনের মালিক পারভেজ বলেন, তিনি (নির্বাহী প্রকৌশলী) মন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে উেকাচের  মাধ্যমে অন্য ঠিকাদারদের কাজ দিয়ে থাকেন। নির্বাহী প্রকৌশলী আহমেদ আবদুল্লাহ নুর বলেন, ‘আমাকে অবরুদ্ধ করে রাখা ও সাদা কাগজে জোর করে তাদের পছন্দমতো লেখা আদায়ের চেষ্টা করেছে। ’

up-arrow