Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫১
৫ বছরেও ১৫ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি স্থায়ী হয়নি
বেতন দেওয়া হচ্ছে দপ্তরির চেয়েও কম
আহমদ সেলিম রেজা

আদালতের নির্দেশ ও সরকারের প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও পাঁচ বছরে ১৫ হাজার অস্থায়ী শিক্ষকের চাকরি স্থায়ী হয়নি। ২০১১ সালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতর সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদের বিপরীতে অস্থায়ীভিত্তিতে তাদের নিয়োগ দেয়। কিন্তু অস্থায়ী বলে এসব শিক্ষকদের থোক হিসেবে যে বেতন দেওয়া হচ্ছে তা দপ্তরির থেকেও কম। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির কাছে এর প্রতিকার চেয়েছে এসব শিক্ষক। 

সংসদ সচিবালয় জানায়, সংসদীয় কমিটির কাছে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের একটি লিখিত আবেদন এসেছে। গত সংসদ অধিবেশনেও এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী প্যানেল শিক্ষকদের পাশাপাশি পুল শিক্ষকদের স্থায়ী নিয়োগের কথা বলেছিলেন। এর আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও একই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

জানা যায়,  সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদফতর ২০১১ সালের ৪ আগস্ট বিজ্ঞপ্তি বলে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১২ হাজার ৭০১ জনকে শূন্য পদে নিয়োগ দেওয়া হয়। বাকি ১৫ হাজার ১৯ জনকে রাখা হয় পুলভুক্ত হিসেবে। এরপর শিক্ষক পুল গঠনের জন্য ২০১২ সালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করে। এরপর ‘শিক্ষক পুল’ নীতিমালা প্রণয়ন করে।

নীতিমালা অনুযায়ী, পুল শিক্ষকদের মাসিক সম্মানী ৬ হাজার টাকা, সরকারি ছুটি ব্যতিত অন্য কোনো প্রকার ছুটি প্রযোজ্য নয়, কর্তব্যস্থলে অনুপস্থিত থাকলে প্রতিদিনের জন্য ২০০ টাকা হারে কর্তন, অসুস্থতা বা দুর্ঘটনাজনিত কারণে সর্বোচ্চ ৭ দিনের বিনা বেতনে ছুটি এবং ১৫০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর দিয়ে যোগদানের নীতি গৃহীত হয়। এ সময় ছয় মাসের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়ার কথা বলে জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে প্রার্থীদের সইও নেওয়া হয়। কিন্তু পরবর্তীতে পুলভুক্ত শিক্ষকদের স্থায়ী নিয়োগ না দিয়ে ২০১৪ সালে সহকারী শিক্ষক পদে নতুন বিজ্ঞপ্তি দেয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এ বিষয়ে পুলভুক্ত শিক্ষকরা হাইকোর্টে গেলে আদালত নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির কার্যকারিতা স্থগিত করে পুল শিক্ষকদের স্থায়ী নিয়োগের নির্দেশ দেয়। এরপর সরকার পক্ষ আপিল করলেও হাইকোর্টের আদেশ বহাল থাকে। একই বিষয়ে আরও একাধিক রিট মামলাও একই রায় দিয়েছে আদালত।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow