Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১২
ধারণ ক্ষমতার তিনগুণ বন্দী
বগুড়া কারাগারের বেহাল দশা
নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

ব্রিটিশ আমলে নির্মিত বগুড়া জেলা কারাগারে ধারণ ক্ষমতার তিনগুণ বন্দী অবস্থান করছেন। এর ফলে বন্দীরা টয়লেট, বাথরুম, গোসলখানাসহ নানা সমস্যায় রয়েছেন। সেই সঙ্গে নিজস্ব ডাক্তার না থাকায় চিকিৎসাসেবাও ঠিকমতো হয় না।

জানা গেছে, ব্রিটিশ শাসনামলে শহরের জলেশ্বরীতলায় করতোয়া নদীর পশ্চিম তীরে ১৮৮৩ সালে জেলা কারাগার নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের পর থেকে অনেকবার সংস্কার করা হলেও সম্প্রসারণ হয়নি। ফলে ধারণ ক্ষমতা যা ছিল তাই রয়েছে। জেলা কারাগারে বন্দী ধারণ ক্ষমতা ৭০৮ জন। বর্তমানে বিভিন্ন অপরাধে জেলা কারাগারে বন্দী রয়েছেন দুই হাজার ৬০ জন। এর মধ্যে মহিলা ৯৭ জন ও বাকিরা পুরুষ। বন্দীদের মধ্যে একজন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত, বিভিন্ন মেয়াদি দণ্ডপ্রাপ্ত ৬০৫ জন ও বাকিরা বিচারাধীন আসামি। তবে কারাগারে আসামি বাড়লেও বাড়েনি টয়লেট, বাথরুম, গোসলখানাসহ অন্যান্য সুবিধা। দুই হাজারের অধিক বন্দীর জন্য রয়েছে ২১টি টয়লেট। প্রতি ওয়ার্ডে বা রুমে ১০০ জনের জন্য বাথরুম রয়েছে মাত্র ২টি। বন্দীরা বেশি সমস্যায় পড়েন সকালে টয়লেট বাথরুম নিয়ে। সেখানে প্রায় একই সময় শতাধিক বন্দী লাইনে দাঁড়িয়ে বাথরুম সারতে গিয়ে হিমশিম খান। কারাগারে নিরাপত্তা কর্মী সংকট না থাকলেও নেই নিজস্ব ডাক্তার। সিভিল সার্জন অফিসের একজন এমবিবিএস ডাক্তার দিয়ে চলছে চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম। এতে মাঝে মধ্যেই চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হয়। এদিকে, কারাগার প্রতিষ্ঠাকালে এর পূর্ব পাশে ভূমি হুকুমদখল করা হলেও আজও তা অব্যবহৃত অবস্থায় রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow