Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০২:৫২
ইসি নিয়োগে আইন চায় টিআইবি
নিজস্ব প্রতিবেদক

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের আগেই নির্বাচন কমিশন নিয়োগ পদ্ধতি-সম্পর্কিত আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংস্থাটি বলেছে, সরকারের সদিচ্ছা থাকলে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের আগেই এটি সম্ভব। গতকাল টিআইবির দেওয়া বিবৃতিতে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক অর্থনীতিবিদ ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন প্রক্রিয়া নিশ্চিত করা হলে অবাধ, সুষ্ঠু, স্বচ্ছ ও অংশগ্রহণমূলক জাতীয় নির্বাচন আয়োজনের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। একই সঙ্গে এর ফলে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে নির্বাচন কমিশনের মর্যাদা ও গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, সাংবিধানিক অঙ্গীকার অবহেলা করে কোনো আইন প্রণয়ন ছাড়াই ধারাবাহিকভাবে শুধু মনোনয়নের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এতে সংবিধানের ১১৮(১) ধারা শুধু লঙ্ঘিতই হচ্ছে না, বরং নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচনব্যবস্থার প্রতি জন-আস্থাও ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। সংবিধানের ১১৮(১) ধারা অনুযায়ী, নির্বাচন কমিশন প্রতিষ্ঠা-সংক্রান্ত আইনের বিধানাবলি সাপেক্ষেই রাষ্ট্রপতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারকে নিয়োগ দেবেন।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘সার্চ কমিটির কর্মপরিধি ও এর সদস্যদের যোগ্যতা-অযোগ্যতা নির্ধারণ, সার্চ কমিটির সুপারিশ করা ব্যক্তিদের সব তথ্য জনগণের জ্ঞাতার্থে প্রকাশ, সিইসি ও অন্য নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগের শর্তাবলি, পদমর্যাদা, বেতন-ভাতাসহ আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতালব্ধ অন্যান্য উপাদান প্রস্তাবিত আইনে অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow