Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:০৫
কাঙ্ক্ষিত পদ পেতে ভিন্ন কৌশলে নেতারা
রাহাত খান, বরিশাল
কাঙ্ক্ষিত পদ পেতে ভিন্ন কৌশলে নেতারা

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের আগেই বরিশাল মহানগরের নতুন কমিটি দেওয়া হবে— এমন তথ্যে প্রত্যাশিত পদ পেতে ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন নেতারা। এ জন্য কেন্দ্রে তদবিরের পাশাপাশি তৃণমূলে যোগাযোগ বাড়িয়েছেন তারা। মূলত মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব পেতে মরিয়া প্রয়াত বরিশাল সিটি মেয়র শওকত হোসেন হিরণ তথা আমির হোসেন আমু বনাম সাবেক চিফ হুইপ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বলয়ের নেতারা। তবে আহ্বায়ক কমিটি নাকি পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেবেন দলীয় সভানেত্রী তা নিয়েও আগাম কিছু বলতে পারছেন না কেউ।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ২৭ ডিসেম্বর অ্যাডভোকেট শওকত হোসেন হিরণ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কাউন্সিলরদের ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম। পরে তারা ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাবিত কমিটি অনুমোদনের জন্য দলীয় সভানেত্রীর কাছে পাঠায়। তবে কমিটি অনুমোদনের আগেই ২০১৩ সালের ৯ এপ্রিল মারা যান সভাপতি শওকত হোসেন হিরণ। পরে উপনির্বাচনে হিরণপত্নী জেবুন্নেছা আফরোজ এমপি হন। এদিকে কেন্দ্রে পাঠানো পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাবিত কমিটির সভাপতি প্রয়াত হিরণের স্থলে তার সহধর্মিণী জেবুন্নেছা আফরোজ এমপির নাম জুড়ে দিয়ে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। এই কমিটিই কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের আগে অনুমোদন পাবে বলে আশা মহানগর সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজালুল করিমের।

অন্যদিকে হিরণের শূন্যতায় মহানগর আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় হন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর বড় ছেলে কেন্দ্রীয় যুবলীগ সদস্য সাদিক আবদুল্লাহ। অল্প সময়ের মধ্যে বরিশালের রাজনীতিতে আইকন বনে যান তিনি। সেই সাদিককে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক করার রেজুলেশন দিয়ে দলীয় সভানেত্রীর কাছে পাঠিয়েছে নগরীর ৩০ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদকরা। আবার সম্প্রতি জেলা আওয়ামী লীগের প্রথম সভায় সাদিককে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক করার প্রস্তাব পাস হয়। এই সভার রেজুলেশনও দলীয় সভানেত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

আফজাল-সাদিক ছাড়াও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার দৌড়ে আছেন নগর যুবলীগের আহ্বায়ক নিজামুল ইসলাম নিজাম ও যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন। অন্যদিকে জেবুন্নেছা আফরোজ এমপি ছাড়াও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতির দৌড়ে আছেন ২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনে সদর আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম, লঞ্চ মালিকদের নেতা মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ বীর-বিক্রম, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শিল্পপতি মো. সাইদুর রহমান রিন্টু এবং মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক দুই যুগ্ম আহ্বায়ক এ কে এম জাহাঙ্গীর ও কে বি এস আহমেদ কবির। আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির বরিশাল বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি বলেন, ত্যাগী, যোগ্য, শিক্ষিত ও সৎ নেতাদের হাতে কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের আগেই বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্ব তুলে দেবেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা। পূর্ণাঙ্গ নাকি আহ্বায়ক কমিটি দেওয়া হবে— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রতিটি রাজনৈতিক দলেই গোপনীয় কিছু থাকে। তাই এ বিষয়ে কিছু বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি।

up-arrow