Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩৮
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১২ হাজার ৬১৯ জনকে নিয়োগের সুপারিশ
স্বজনপ্রীতির কোনো সুযোগ নেই দাবি শিক্ষামন্ত্রীর
নিজস্ব প্রতিবেদক

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রথমবারের মতো মেধাতালিকা থেকে শিক্ষক নিয়োগের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। গতকাল বিকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মনোনীত ১২ হাজার ৬১৯ জন প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। শূন্যপদে চাহিদা চেয়ে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) দেওয়া বিজ্ঞপ্তির পরিপ্রেক্ষিতে ৬ হাজার ৪৭০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৪ হাজার ৬৬৯টি শূন্য পদের কথা জানায়। এসব পদের বিপরীতে ১৩টি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে ১৩ লাখ ৭৫ হাজার ১৮৭ জন শিক্ষকতার চাকরি পেতে আবেদন করেন। এসব আবেদন যাচাই-বাছাই করে ১২ হাজার ৬১৯ জনকে নিয়োগের জন্য চূড়ান্ত করা হয়।

জানা গেছে, ৭১৮টি পদে কোনো প্রার্থী আবেদন করেননি। এগুলোর মধ্যে বেশির ভাগই শারীরিক শিক্ষকের পদ। এ ছাড়া মামলার কারণে স্থগিত থাকায় কম্পিউটার বিষয়ের এক হাজার ৯৫টি পদের বিপরীতে কোনো প্রার্থীকে নির্বাচিত করা হয়নি। এনটিআরসিএ কর্মকর্তারা জানান, ফলাফল এনটিআরসিএর ওয়েবসাইট ও এসএমএসের মাধ্যমে প্রার্থীরা জানতে পারবেন।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ এ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের অনুরূপ নিয়োগ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের কথা বলা হয়েছে। সে অনুযায়ী শতভাগ স্বচ্ছ, বিড়ম্বনামুক্ত ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে এসব শিক্ষক বাছাই করা হয়েছে। এখানে তদবির বা স্বজনপ্রীতির কোনো সুযোগ নেই। কারও কাছে টাকা চাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কেউ টাকা চাইলে সঙ্গে সঙ্গে আমাদের জানাবেন, ঘুষের অপরাধের জন্য আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বাছাইকৃত এসব প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়োগপত্র প্রদান করবে বলে জানান মন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, এনটিআরসিএর চেয়ারম্যান এ এম এস আজহারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

up-arrow