Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৫৩
রোগীর সঙ্গে প্রতারণায় খুলনায় গাজী মেডিকেলকে জরিমানা
আইসিইউ ব্যবসা ও চিকিৎসায় অনিয়ম
নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

আইসিইউ ব্যবসা, সেবার নামে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা, চিকিৎসায় অব্যবস্থাপনা ও প্যাথলজি পরীক্ষায় মেয়াদোত্তীর্ণ রি-এজেন্ট (ওষুধ, কেমিক্যাল) ব্যবহারের দায়ে খুলনার বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (সার্জিক্যাল ক্লিনিক) কর্তৃপক্ষকে ১১ লাখ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। জরিমানা অনাদায়ে প্রতিষ্ঠানের পাঁচ কর্মকর্তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

বুধবার দুপুরে র‌্যাব-৬-এর বিশেষ অভিযানের পর ভ্রাম্যমাণ আদালতে ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফিরোজ আহমেদ এ সাজা দেন। জরিমানার অর্থ তত্ক্ষণাৎ পরিশোধ না করায় হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. গাজী মিজানুর রহমানসহ পাঁচজনকে আটক করে নিয়ে যায় র‌্যাব। পরে সন্ধ্যায় জরিমানার অর্থ পরিশোধের পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। অভিযুক্তরা হলেন হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. গাজী মিজানুর রহমান, পরিচালক (প্রশাসন) ডা. সুভাষ কুমার সাহা, সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) ডা. এ বি এম মাহবুবুর হক, ল্যাব ইনচার্জ জেমস তরুণ সরকার, বাহারুল ইসলাম ও ফার্মেসি পরিচালক মোল্লা নাসির উদ্দিন। অভিযান শেষে ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফিরোজ আহমেদ জানান, হাসপাতালটিতে দীর্ঘদিন ধরে আইসিইউ সেবার নামে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করা হচ্ছিল। বিনা কারণে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই আইসিইউতে রোগী ভর্তি করে টাকা আদায় করা হতো। পাশাপাশি আইসিইউর বেড ভাড়া ৩ হাজার টাকা বলা হলেও পরে সার্ভিস চার্জ, কনসালট্যান্ট ফির নামে এর কয়েক গুণ বেশি অর্থ আদায় করা হতো। এ ছাড়া রোগীদের প্যাথলজি পরীক্ষা-নিরীক্ষায় মেয়াদোত্তীর্ণ রি-এজেন্ট ব্যবহার করা হয়। হাসপাতালে ব্লাড ব্যাংকের অনুমোদন না থাকলেও অভিযানকালে ২৩ ব্যাগ কালচে নষ্ট হয়ে যাওয়া রক্ত উদ্ধার হয়। বিভিন্ন প্যাথলজি পরীক্ষার রিপোর্টে চিকিৎসকদের পরিবর্তে অন্যদের স্বাক্ষর নেওয়ার প্রমাণপত্র পাওয়া গেছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow