Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৫২
বাংলাদেশ দ্রুত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে
——— আশফাকুর রহমান
বাংলাদেশ দ্রুত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবে

চীনে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত আশফাকুর রহমান বলেছেন, চীনা প্রেসিডেন্টের এ সফরের মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্কের নতুন দ্বার উন্মোচিত হলো। এর মাধ্যমে চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনার একটা সুযোগ তৈরি হলো। কেননা চীনের মধ্য ও পশ্চিম অংশে বাংলাদেশি    ওষুধের বেশ সুনাম রয়েছে। সেখানকার বাজার ধরতে হলে আমাদের দেশীয় ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলোকে সক্ষমতা অর্জন করে এগিয়ে যেতে হবে। ওইসব অঞ্চলে ওষুধ রপ্তানির ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।

গতকাল বিকালে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, চীনা প্রেসিডেন্টের ঢাকা সফরের মাধ্যমে দুই দেশের সম্পর্ক আরও নিবিড় হলো। একে কাজে লাগাতে হবে। তার এ সফর দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ককে আরও কাছাকাছি নিয়ে এলো।

আশফাকুর রহমান বলেন, চীনের সঙ্গে বাংলাদেশসহ এ অঞ্চলের সম্পর্ক বেশ পুরনো। সেটা ১০০ বা ৫০ বছরের নয়। চীনের সভ্যতার ইতিহাস ৫ থেকে ৭ হাজার বছরের। আর বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক হচ্ছে ২ হাজার বছরের পুরনো। সে সময় চীনের বৌদ্ধ ভিক্ষুরা আমাদের উত্তরের জেলা রংপুর ও বগুড়ায় এসেছিলেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে বর্তমানে বিশ্বের অনেক প্রভাবশালী দেশের সুসম্পর্ক রয়েছে। যেমন রাশিয়া, আমেরিকা, জাপান, জার্মানি ও চীন। সেই সঙ্গে প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের সঙ্গেও বাংলাদেশের সুসম্পর্ক রয়েছে। চীনা প্রেসিডেন্টের এ সফর ও ঋণসহায়তা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশের অবকাঠামোর উন্নয়নে চীন সহায়তা দিচ্ছে। ২০০৪-০৫ সালে চীনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করা আশফাকুর রহমান আরও বলেন, চীনা প্রেসিডেন্টের ঢাকা সফর অত্যন্ত সময়োপযোগী। সামনে মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হতে আমাদের অবকাঠামোর উন্নয়ন অত্যন্ত জরুরি। সেই অবকাঠামো খাতের উন্নয়নে এগিয়ে এসেছে চীন। এটাই প্রকৃত বন্ধুর পরিচয়। চীনের বিনিয়োগ কিংবা ঋণের ক্ষেত্রে বড় একটা সুবিধা রয়েছে আর তা হলো চীন একই সঙ্গে অর্থ, প্রযুক্তি ও কারিগরি সহায়তা দিতে সক্ষম। আমরা এখন খুব দ্রুত আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব। অর্থাৎ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশ গড়ার যে স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ তা আরও দ্রুততার সঙ্গে এগিয়ে যাবে চীনের এ সহযোগিতার কারণে।

up-arrow