Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৫৫
কড়া নিরাপত্তা বর্ণিল সাজে ঢাকা
নিজস্ব প্রতিবেদক

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সফর উপলক্ষে নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ছিল রাজধানী ঢাকা। বিশেষ করে প্রেসিডেন্টের আবাস ও কর্মসূচিস্থলকে ঘিরে চার স্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনী গড়ে তোলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যা করা দরকার, তার সবকিছুই করা হয়েছে। আর রাষ্ট্রীয় এই অতিথিকে শুভেচ্ছা জানাতে রাজধানী ঢাকাকে সাজানো হয় বর্ণিল সাজে। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে শুরু করে ভিআইপি সড়কের সব মোড়ে শোভা পায় চীনের প্রেসিডেন্টকে শুভেচ্ছা জানানো নানা রঙের শত শত ব্যানার-ফেস্টুন-পোস্টার। খুঁটি থেকে খুঁটিতে ঝোলানো হয় দুই দেশের প্রেসিডেন্ট ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর হাস্যোজ্জ্বল ছবি। সন্ধ্যার পর ঢাকার সৌন্দর্যে ভিন্ন মাত্রা পায় আলোর ঝলকানিতে। জ্বলে ওঠে লাল নীল সবুজ ও সাদা বাতি। রঙিন হয়ে ওঠে ঢাকা। এদিকে চীনের প্রেসিডেন্টের চলাচলের পথ নির্বিঘ্ন রাখতে বেশকিছু সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এতে সাধারণ মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। বেশকিছু সড়কে প্রচণ্ড যানজটের সৃষ্টি হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়ির ভিতরই থাকতে হয়েছে যাত্রীসাধারণকে। অনেককে এ সময় পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।

বর্ণিল সাজে ঢাকা : বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি চীনের প্রেসিডেন্টের উড়োজাহাজটি বাংলাদেশের আকাশসীমায় ঢোকার পর তাকে পাহারা দিয়ে বিমানবন্দরে নিয়ে আসে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর চারটি জেট ফাইটার। অবতরণের পর রাষ্ট্রীয় এই অতিথিকে ২১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাগত জানানো হয়। লাল পাড়ের সবুজ শাড়ি পরা একটি শিশু ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়ার পর লাল গালিচায় হেঁটে তিনি সংবর্ধনামঞ্চে পৌঁছান। সামরিক বাহিনীর সুসজ্জিত একটি দল এ সময় চীনের প্রেসিডেন্টকে গার্ড অব অনার দেয়। বাজানো হয় দুই দেশের জাতীয় সংগীত। চীনা প্রেসিডেন্টের আগমন উপলক্ষে শাহজালাল বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনাল দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের ছবি দিয়ে সাজানো হয়। বিমানবন্দর ও হোটেল লো মেরিডিয়ানের পথে বাংলা ও ইংরেজিতে লেখা ব্যানারে শোভা পায় সম্ভাষণ— ‘স্বাগত হে মহামান্য অতিথি’। বিমানবন্দরের ভিভিআইপি গেটেও টাঙানো হয় শি জিনপিং, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বড় আকারের তিনটি ছবি। ফুটওভার ব্রিজগুলোয় টাঙানো হয়েছে ‘বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী দীর্ঘজীবী হোক’ ব্যানার। একই স্লোগান আছে বিমানবন্দরের প্রবেশদ্বারেও। এ সফর ঘিরে প্রায় পুরো ঢাকা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপগুলো দুই দেশের পতাকা, নানা ধরনের ব্যানার, ফেস্টুন, প্লাকার্ড, তিন নেতার ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে এবং রাতে রংবেরঙের বাতি দিয়ে আলোকসজ্জা করা হয়। শি জিনপিং ঢাকায় অবস্থান করেন হোটেল লা মেরিডিয়ানে। সেটিও সাজানো হয় বর্ণিল সাজে। হোটেলের বাইরে টাঙানো হয় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং জিনপিংয়ের বিশাল ছবি। হোটেলের মূল ফটকে রয়েছে আরও একটি ছবি।

নিরাপত্তাব্যবস্থা : চীনের দূতাবাস ও নিরাপত্তা সংস্থার পরামর্শ অনুযায়ী শি জিনপিং যেসব স্থানে যাবেন সেখানে চার স্তরের নিরাপত্তাবলয় গড়ে তোলা হয়েছে। পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের সফর উপলক্ষে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বিমানবন্দর সড়কে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়। সড়কে থাকা গতিরোধকও তুলে ফেলা হয়েছে। গতকাল সকাল ১০টা থেকে আজ শনিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত বিমানবন্দর সড়কের খিলক্ষেত ক্রসিং থেকে পদ্মা অয়েল ক্রসিং পর্যন্ত সড়কের পশ্চিম অংশ দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে পূর্ব অংশ দিয়ে গাড়ি আসা-যাওয়া করতে পারবে। ওই সময়ে দূরপাল্লার বাস ও ট্রাক বিমানবন্দর সড়কে চলতে পারবে না। তার বদলে আবদুল্লাহপুর ও ধউর থেকে বেড়িবাঁধ-মাজার রোড অথবা গাবতলী সড়ক ব্যবহার করে বাস-ট্রাক চলবে।

প্রস্তুত সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ : সাভার প্রতিনিধি জানান, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সফর উপলক্ষে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ২৪ ঘণ্টার জন্য যান চলাচল সীমিত করা হয়েছে। গতকাল গভীর রাত থেকে আজ বেলা ১১টা পর্যন্ত আশুলিয়ার নয়ারহাট থেকে আমিনবাজার পর্যন্ত রাস্তার পশ্চিম অংশ (আউটগোয়িং ও ইনকামিং) বন্ধ থাকবে। কোনো অংশ দিয়ে গাড়ি আসা-যাওয়া করতে পারবে না। ওই সময়ে ঢাকামুখী ও ঢাকা থেকে আরিচা পর্যন্ত দূরপাল্লার বাস ও ট্রাক ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক ব্যবহার করতে পারবে না। তার বদলে আবদুল্লাহপুর ও ধউর থেকে বেড়িবাঁধ-মাজার রোড অথবা গাবতলী সড়ক ব্যবহার করতে দূরপাল্লার বাস ও ট্রাককে ঢাকায় প্রবেশ করতে হবে। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার শাহ মিজান সাফিউর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ অতিথির বাংলাদেশ সফর উপলক্ষে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে’ এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে আসছেন বাংলাদেশ সফররত চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। চীনের প্রেসিডেন্টকে বরণ করে নিতে পুরোপুরি প্রস্তুত সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধ। সাভার গণপূর্ত বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, আজ সকাল ৯টায় চীনের প্রেসিডেন্ট ঢাকা থেকে সড়কপথে জাতীয় স্মৃতিসৌধে এসে পৌঁছবেন। তার আগমন উপলক্ষে স্মৃতিসৌধে ধোয়ামোছা ও রংতুলির কাজ করা হয়েছে। এ উপলক্ষে ৯ অক্টোবর থেকে স্মৃতিসৌধে জনসাধারণের প্রবেশ বন্ধ রাখা হয়।

up-arrow