Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩৭
সম্পত্তি গ্রাসের মতলবে মাকে আটকে রেখেছে কুলাঙ্গাররা
সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

জমি আত্মসাতের হীনউদ্দেশ্যে মাকে অমানবিকভাবে আটকে রেখেছে তার সন্তানরা। নির্মম ঘটনাটি খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা নবপল্লী এলাকার। প্রতিবেশীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে সরেজমিন গেলে দেখা যায়, ভাঙা বারান্দার চারপাশে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ। অন্ধকার স্যাঁতসেঁতে জায়গায় মাছি ভনভন করছে। পাশের পুকুর, কচুক্ষেত থেকে পোকামাকড় চলে আসে হরহামেশা। তারই মাঝে ৯০ বছরের বৃদ্ধা হাফেজা বেগমকে অমানবিকভাবে রাখা হয়েছে। অসুস্থ, সারা শরীরে ক্ষত। তা থেকে দুর্গন্ধ বেরুচ্ছে। চলার শক্তি নেই, চোখেও দেখেন না। ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া নেই, পরনে ছেঁড়া নোংরা কাপড়। দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকলেও চিকিৎসা করানো হয় না। কেউ এলে ফ্যাল ফ্যাল করে চেয়ে থাকেন।

প্রতিবেদককে দেখে ভাঙা গলায় বললেন, ‘আমাকে ওষুধ কিনে দাও, ওষুধ খাবো।’ সারাক্ষণ বাড়ির গেটে তালা লাগিয়ে রাখা হয়। আত্মীয়স্বজনকে দেখা করতে দেওয়া হয় না। বৃদ্ধার জমি আত্মসাতের হীন উদ্দেশ্যে বছরের পর বছর তাকে এভাবে ছেলেমেয়েরা আটকে রেখেছে বলে জানান প্রতিবেশীরা।  জানা গেছে, মৃত আবদুর রব কাজীর স্ত্রী হাফেজা বেগম তিন ছেলে ও তিন মেয়ের মা। স্বামীর মৃত্যুর পর ছেলেমেয়েরা জমির ভাগাভাগি নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়ে। ফলে অসহায় হয়ে পড়েন এই বৃদ্ধা। এক পর্যায়ে ছোট ছেলে হোসেন কাজী ও মেয়ে ফিরোজা বেগম এই বৃদ্ধাকে দেখাশোনোর কথা বলে বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখেন। বৃদ্ধার আরেক মেয়ে নূরবানু অভিযোগ করেন, নিজের মায়ের সঙ্গে তাদের দেখা করতে দেওয়া হয় না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow