Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৪১
ধর্ষণ ও ভ্রূণ হত্যা চেষ্টার দায়ে যাবজ্জীবন
সেই সন্তানের ব্যয়ভার সরকারকে বহনের নির্দেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালের ইছাগুড়া এলাকায় ধর্ষণ ও ভ্রূণ হত্যা চেষ্টার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণে জন্ম নেওয়া শিশু কন্যার বয়স ২১ বছর হওয়া পর্যন্ত তার যাবতীয় ব্যয়ভার বহনের জন্য সরকারের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শেখ আবু তাহের গতকাল বিকালে আসামির অনুপস্থিতে এই রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডিত বজলুর রহমান একই এলাকার এছাহাক আলীর ছেলে।

ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী আজিবর রহমান জানান, মামলার বাদীর সঙ্গে প্রতিবেশী বজলুর রহমানের প্রেমের সম্পর্ক হয়। এই সম্পর্কের সূত্র ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাদীকে তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণ করে আসামি। এতে বাদী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। তখন বাদী বজলুকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। বিয়ের জন্য পোশাক কেনার কথা বলে বাদীকে বরিশাল নগরীতে এনে হাসপাতালে ভর্তি করে তার গর্ভের ভ্রূণ হত্যার চেষ্টা করে আসামি। এ সময় বাদী পালিয়ে যায়। ভ্রূণ হত্যায় ব্যর্থ হয়ে বজলু বাদীকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়।

এ ঘটনায় ২০১১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের হয়। একই থানার এসআই আনোয়ার হোসেন একই বছরের ৩ এপ্রিল বজলুর রহমানকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে এই মামলার অভিযোগপত্র জমা দেন। পরে সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মামলার অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় উপরোক্ত রায় ঘোষণা করেন বিচারক।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow