Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৫
যে জন্য পুলিশ পদক পেলেন এসপি হারুন
গাজীপুর প্রতিনিধি
যে জন্য পুলিশ পদক পেলেন এসপি হারুন

গাজীপুর জেলায় সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি বন্ধ, মাদক নির্মূলে কাজ করে যাচ্ছে জেলা পুলিশ। বিশেষ করে জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে জেলার পুলিশ ইতিমধ্যেই প্রশংসা কুড়িয়েছে জেলাবাসীর।

এসপির বলিষ্ঠ ও সাহসী নেতৃত্বে জেলায় ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, চোরাকারবারি, দখলবাজিসহ নানা অপরাধ নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এমনকি পোশাক শিল্পে নাশকতাকারীদের কঠোর হাতে দমনেও ভূমিকা রেখেছেন তিনি। তার কারণেই জেলার গার্মেন্ট মালিক, শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীরা শান্তিতে ও নিরাপদে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারছেন। এসবের স্বীকৃতিস্বরূপ এবারও পুলিশ পদক পেয়েছেন এই পুলিশ সুপার। এসপি হারুন অর রশীদের বিশেষ উদ্যোগ থাকায় দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমাও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। গত বছরও এই বিশ্ব ইজতেমা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানে তার ভূমিকা ছিল। ইজতেমা ছাড়া ধর্মীয় উৎসব ঈদ, পূজা-পার্বণও গাজীপুরের মানুষ নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে পালন করেন। ছিনতাই, চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে রীতিমতো যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন গাজীপুরের পুলিশ সুপার। গত বছর জয়দেবপুর থানাধীন বোর্ডবাজার ডাচ্-বাংলা ব্যাংক থেকে ১০ লাখ টাকা তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় ছিনতাইকারীরা আবদুল আলীম নামে এক ব্যক্তিকে মাইক্রোবাসে উঠিয়ে নেয়। খবর পেয়ে পুলিশ সুপার তাত্ক্ষণিক পদক্ষেপ নিয়ে ওই ব্যক্তি এবং টাকা দুই-ই উদ্ধার করেন। গাজীপুর জেলায় জঙ্গিবাদবিরোধী কর্মকাণ্ডের অংশ হিসেবে জনসচেতনতার সৃষ্টি করতে সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে নিয়ে আইজিপির উপস্থিতিতে সুধী সমাবেশ করেন এসপি। একইভাবে প্রতিটি থানায় কমিউনিটি পুলিশিং ও সুধী সমাবেশ আয়োজন করান। গত ৩ সেপ্টেম্বর মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত আসামি মীর কাসেম আলীর ফাঁসির আদেশ কাশিমপুর কারাগারে কার্যকর করার সময় জেলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সুপারের ভূমিকা ছিল। টঙ্গীর টাম্পাকো ফয়েলস লিঃ ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশ সুপার সঙ্গে সঙ্গে উপস্থিত হয়ে উদ্ধার কাজে সহায়তাসহ আহতদের চিকিৎসা নিশ্চিতকরণ এবং নিহতদের শনাক্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তরের ব্যবস্থা করেন। গত ৮ অক্টোবর জয়দেবপুর থানার হাড়িনাল পাতারটেক এলাকায় জঙ্গি আস্তানায় বিশেষ অভিযান চালান এসপি। ওই অভিযানে নব্য জেএমবির ঢাকা বিভাগীয় প্রধান ফরিদুল ইসলাম ওরফে আকাশসহ সাত জঙ্গি সদস্য নিহত হয়। স্থানীয়রা বলছেন, হারুন অর রশীদ ২০১৪ সালের ২৪ আগস্ট গাজীপুরের পুলিশ সুপার পদে যোগদানের পর থেকে বিভিন্ন শিল্প, কল-কারখানা, গার্মেন্ট, ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, ঝুট নিয়ে হাঙ্গামা কঠোরভাবে প্রতিহত করছেন। মাদকের বিরুদ্ধে তিনি জিহাদ ঘোষণা করেন। চালিয়েছেন সাঁড়াশি অভিযানও।

কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলার এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞানে মাস্টার্স করে ২০তম বিসিএসের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন তিনি।

up-arrow