Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০২:০২
সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় প্রয়োজন ঐক্য : ফখরুল
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সর্বগ্রাসী সন্ত্রাসবাদকে মোকাবিলার জন্য প্রয়োজন জাতীয় ঐক্য। তিনি বলেন, যেখানে গণতন্ত্র থাকবে না— সেখানে সন্ত্রাসবাদ, উগ্রবাদের জন্ম হবে এবং তা আরও প্রসারিত হবে।

গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘ফাইটিং মিলিটেন্সি ইন কিউইস্ট অব পিস’ নামের একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। জাসাস সভাপতি অধ্যাপক মামুন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মির্জা ফখরুল অভিযোগ করে বলেন, সরকার জঙ্গিবাদ দমনের নামে রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছে।

সত্যিকার অর্থে যদি জঙ্গিবাদ দমনে সরকার আন্তরিক হয়— তাহলে এসব ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দায়ীদের খুঁজে বের করতে হবে। যে কাজটি বিএনপি ২০০৪-০৫ সালে করেছিল। কিন্তু এ সরকার ইচ্ছাকৃতভাবেই তা করছে না, যাতে তাদের রাজনৈতিক ফায়দা নিতে সুবিধা হয়। বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদের উত্থানের কথা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ৯/১১-এর পর থেকে গোটা পৃথিবীর শান্তির চেহারা পাল্টে যেতে শুরু করে। সিরিয়া, লিবিয়া, মিয়ানমারসহ সমগ্র বিশ্বের রাজনৈতিক চেহারা পাল্টে গেছে। আজকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস দ্বারা মায়ের পেটে শিশুকে গুলি করে মারা হচ্ছে, সাংবাদিকদের গুলি করে মারা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপি শুরু থেকেই জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে আসছে। ‘তাভেলা সিজার’ হত্যার পর যখন বিএনপি জাতীয় ঐক্যের ডাক দেয়— তখন প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্ক থেকে বললেন এর সঙ্গে নাকি বিএনপি যুক্ত। ঘটনার পর পরই কোনো রকমের তদন্তের আগেই যদি প্রধানমন্ত্রী প্রতিপক্ষ বিরোধী রাজনৈতিক দলকে দায়ী করে বক্তৃতা দেন, এরপর কি আর নিরপেক্ষ তদন্ত হবে? এখন পর্যন্ত এসব ঘটনায় যাদের ধরা হয়েছে তাদের সবাইকে হয়তো ক্রসফায়ার বা অন্য কোনো না কোনোভাবে মেরে ফেলা হয়েছে। বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, জঙ্গিবাদকে ব্যবহার করা হচ্ছে। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। রাজনৈতিকভাবে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার জন্য এ বিষয়টি সরকার যাতে না করতে পারে, এ জন্য একটি মাত্র পথ খোলা আছে। এ জন্য সর্বস্তরের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। সবাইকে সচেতন করে লড়াই করতে হবে, সোচ্চার করতে হবে। কারণ জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই কোনো ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর নয়। আমরা সব ধরনের জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow