Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • চাটাইয়ে মুড়িয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান!
  • কেরানীগঞ্জে বাচ্চু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ৭ জনের যাবজ্জীবন
  • ৩ মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে খালেদার আবেদন
  • হালদা নদীর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ভাঙার নির্দেশ
  • আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা
  • কাদেরের বক্তব্যে একতরফা নির্বাচনের ইঙ্গিত: রিজভী
  • কলারোয়া সীমান্তে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ বাংলাদেশিকে ফেরত দিল বিএসএফ
  • বিএনপি নির্বাচনে না এলেও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে: কাদের
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৭
বিশুদ্ধ পানি প্রাপ্তি প্রধান সমস্যা
ফারুক তাহের, চট্টগ্রাম
বিশুদ্ধ পানি প্রাপ্তি প্রধান সমস্যা

জলাবদ্ধতার কারণে সব ঋতুতেই দূষিত পানিতে ডুবে থাকে ২৩ নম্বর উত্তর পাঠানটুলী ওয়ার্ড। অন্যদিকে বিশুদ্ধ খাবার পানির বড়ই অভাব এখানে। এ দুই কারণে মানুষের বিড়ম্বনার শেষ নেই। ইদানীং মাদক ব্যবসার আখড়ায় পরিণত হয়েছে ওয়ার্ডটি। ভাঙাচোরা রাস্তা, ঘিঞ্জি পথ এ এলাকার অন্যতম সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশুদ্ধ পানির সংকট নিরসন, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, মাদক ব্যবসা বন্ধ এবং শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও যাতায়াত সমস্যার সমাধানের নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচিত হলেও পরে সবই ভুলে যান বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

সরেজমিন জানা যায়, বর্ষার শুরুতেই উত্তর পাঠানটুলীর প্রায় সবখানে বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। ওই পানিতেই জন্মায় মশা-মাছি। ফলে মশা-মাছির উপদ্রবে অতিষ্ঠ থাকে এলাকাবাসী। এর সঙ্গে লেগে থাকে বিশুদ্ধ পানির অভাব। এলাকায় ওয়াসার পানি নিয়মিত পাওয়া যায় না। ফলে প্রায় সময় চলে পানির জন্য হাহাকার। ঘিঞ্জি পথের কারণে আগুন লাগলে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি প্রবেশ করতে পারে না বলে প্রতি বছর অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হন এলাকাবাসী। ওয়ার্ড কমিশনার মোহাম্মদ জাবেদ বলেন, গত এক বছরে যথেষ্ট উন্নয়নকাজ হয়েছে এ এলাকায়। অনেক রাস্তা উঁচু ও প্রশস্ত করা হয়েছে। এলাকার মাদক      সমস্যা নিরসন করতে হলে সবাইকে সচেতন হতে হবে। সেই সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও প্রয়োগকর্তাদের কঠোর ভূমিকা নিতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow