Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২৭
খুলনার বেশির ভাগ স্কুলে নেই শহীদ মিনার
নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা
খুলনার বেশির ভাগ স্কুলে নেই শহীদ মিনার

খুলনার বেশির ভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। মাতৃভাষা দিবস বা শহীদ দিবসের তাৎপর্য কি তাও   বোঝে না বেশিরভাগ শিক্ষার্থী।

গ্রামপর্যায়ের বেশিরভাগ স্কুল, কলেজ-মাদ্রাসায় ২১ ফেব্রুয়ারি মানে শুধুই ছুটির দিন। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের        শিক্ষার্থীরা রয়েছে আরও অন্ধকারে। গত কয়েক দিনে খুলনার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।  

শিক্ষা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, খুলনায় প্রায় দেড় হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে এক হাজারের বেশি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারের সঙ্গে পরিচিত হতে পারছে না। আর যেসব স্কুলে শহীদ মিনার রয়েছে, সেখানেও তা থাকে অবহেলায় অনাদরে।

সরেজমিন দেখা গেছে, ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলনা জিলা স্কুলের শহীদ মিনারের মূল স্তম্ভের উপরেই ছেঁড়া কাগজ, গাছের শুকনো পাতা ও ধুলার আস্তরণ দেখা যায়। ময়লার বস্তা ও টপ ছড়িয়ে রাখা হয়েছে বিক্ষিপ্তভাবে। লায়ন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক বিভূতি ভূষণ গাইন জানান, খুলনার বেশিরভাগ স্কুলের শহীদ মিনারের চিত্র এরকমই। কোনো বরাদ্দ না থাকায় সারা বছর ধরে তা অরক্ষিত অবস্থায় থাকে। শুধু বিশেষ দিবসে ধুয়ে মুছে ব্যবহার উপযোগী করা হয়। নজরুল নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সুষমা বালা জানান, কোনো স্কুলে নিজস্ব অর্থায়নে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হলেও মূল অবকাঠামোর সঙ্গে এর মিল থাকে না। ফলে বিভ্রান্তিতে পড়ে শিক্ষার্থীরা। শ্রদ্ধা জানাতে কোথাও বাঁশ, কলাগাছ বা মাটি দিয়ে শহীদ মিনার তৈরি করা হলেও এটা স্থায়ী সমাধান নয়।  

তবে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা, খুলনা অঞ্চলের পরিচালক টিএম জাকির হোসেন বলেন, সব স্কুলে শহীদ মিনার নির্মাণ করতে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে। ভাষা আন্দোলনের গৌরবময় ইতিহাস শিক্ষার্থীদের জানাতে শহীদ মিনার প্রতিষ্ঠা ও তার মর্যাদা রক্ষায় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow