Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০২
অপচয় ঠেকাতে ৬০ হাজার প্রি-পেইড গ্যাস মিটার
প্রতি চুলায় গ্রাহকের সাশ্রয় ২০০ থেকে ২৫০ টাকা
রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (কেজিডিসিএল) গ্যাসের অপচয় ঠেকাতে প্রথমবারের মতো ১০ জোনের ৬০ হাজার গ্রাহককে প্রি-পেইড মিটারের আওতায় আনা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে শেষ হয়েছে চুলা জরিপ কাজ।

মিটার বসানোর কাজ করতে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় জাপানি একটি কোম্পানির সঙ্গে। নতুন এ পদ্ধতিতে প্রতি চুলায় গ্রাহকের ২০০ থেকে ২৫০ টাকা সাশ্রয় হতে পারে। মোবাইলে টাকা রিচার্জের মতোই গ্রাহকরা গ্যাসের প্রয়োজনীয় টাকা মিটারে রিচার্জ করতে পারবেন। কেজিডিসিএল সূত্রে জানা যায়, গ্যাসের অপচয় রোধ ও চুরি ঠেকাতে ২৪৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকার ‘ন্যাচারাল গ্যাস ইফিসিয়েন্সি প্রজেক্ট’ নামের একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে ১৫৪ কোটি ১১ লাখ টাকা দিচ্ছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) আর সরকার দিচ্ছে ৮১ কোটি ৪৫ লাখ এবং কেজিডিসিএল দিচ্ছে ১০ কোটি ৯১ লাখ টাকা। চট্টগ্রাম মহানগরের ষোলশহরে অবস্থিত কেজিডিসিএলের অফিসের চারপাশের প্রায় দুই বর্গকিলোমিটার এলাকার চুলাগুলোকে বাছাই করা হয়েছে। এই হিসাবে নগরীর ষোলশহর, নাসিরাবাদ, খুলশী, চান্দগাঁও, চকবাজার, আন্দরকিল্লা, লালখান বাজার, কাজীর দেউড়ি, পাঁচলাইশ ও হালিশহরের ৬০ হাজার বাসিন্দা নতুন এ প্রি পেইড মিটারের আওতায় আসছে।  

প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী খায়েজ আহম্মদ মজুমদার বলেন, ‘বিদেশ থেকে মিটারগুলো এখন আসার পথে। এগুলো পৌঁছলে আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তা বসানোর কাজ শুরু করব।

আশা করছি আগামী মার্চের শেষ দিকে এসব বসানোর কাজ করা হবে। তিনি বলেন, নতুন এ পদ্ধতি চালু হলে প্রতি চুলায় গ্রাহকের বর্তমানের চেয়ে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা সাশ্রয় হবে। এতে গ্যাস চুরি  কমার পাশাপাশি গ্রাহকদের ভোগান্তিও কমবে। প্রি-পেইড মিটারিং ব্যবস্থায় গ্যাস বিল বকেয়া রাখার কিংবা অবৈধভাবে গ্যাস ব্যবহারের সুযোগ থাকবে না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow