Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ মার্চ, ২০১৭ ০২:৫৭
হকার উচ্ছেদে আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কা
নিজস্ব প্রতিবেদক
হকার উচ্ছেদে আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কা

সরকারদলীয় এমপিরা পুনর্বাসন ছাড়া অমানবিকভাবে হকার উচ্ছেদ বন্ধ এবং অবৈধ পরিবহন শ্রমিক ধর্মঘট আহ্বানের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। তারা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, হকার উচ্ছেদের ফলে দেশে চুরি-ডাকাতি বেড়ে যাবে ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে।

একই সঙ্গে বিমানে সেবার মান বাড়ানোর দাবি জানান বিরোধী দলের সদস্যরা। সংসদের চতুর্দশ ও শীতকালীন অধিবেশনে গতকাল রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে তারা এ দাবি জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরুর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, জাহাঙ্গীর কবির নানক, মো. ইসরাফিল আলম, নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, হাবিবুর রহমান মোল্লা, মোর্শেদ আলম, মো. আব্দুল্লাহ, হোসনে আরা বেগম, নাজিম উদ্দিন আহমেদ এবং জাতীয় পার্টির মাহজাবীন মোর্শেদ।

ইসরাফিল আলম বলেন, হকারী কোনো অবৈধ পেশা নয়। জিডিপিতে তাদের অবদান রয়েছে। এখন তাদেরকে অমানবিকভাবে বুলডোজার দিয়ে উচ্ছেদ করা হচ্ছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পুনর্বাসন ছাড়া কোনো হকার উচ্ছেদ করা যাবে না। হকার উচ্ছেদের ফলে দেশে সামাজিক অস্থিরতাসহ চুরি-ডাকাতি বেড়ে যাবে ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে তিনি অবৈধ শ্রমিক ধর্মঘট আহ্বানের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান জানিয়েছেন, সারা দেশে বর্তমানে ওয়াক্ফ এস্টেটের আওতায় তালিকাভুক্ত জমির পরিমাণ ৪ লাখ ২৪ হাজার ৫৭১.৭৪ একর। সংসদে গতকাল টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে এ কে এম রহমত উল্লাহর (ঢাকা-১১) প্রশ্নের জবাবে ধর্মমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

ভেজাল ওষুধ প্রস্তুতকারী ৮৬ প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিল : মোহাম্মদ আবদুল মুনিম চৌধুরীর (হবিগঞ্জ-১) তারকাচিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধ উৎপাদনের দায়ে দেশের ৮৬টি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স সাময়িক বাতিল করা হয়েছে।

সিজারিয়ান অপারেশন বেড়েছে ৮ ভাগ : এম আবদুল লতিফের (চট্টগ্রাম-১১) এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারি হাসপাতালের চেয়ে প্রাইভেট হাসপাতাল/ক্লিনিকে তুলনামূলকভাবে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে সন্তান প্রসবের হার অনেক বেশি। দেশে ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বছরে দেশে সিজারিয়ান অপারেশনের হার শতকরা ৮ ভাগ বেড়েছে। সরকারি হাসপাতালে প্রসবসেবা বাড়ানোর মাধ্যমে প্রাইভেট হাসপাতাল/ক্লিনিকে সিজারিয়ান অপারেশনের হার কমানোর লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে।

up-arrow