Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ মার্চ, ২০১৭ ২৩:২০
সুরমার পাড় কেটে মাটি বাণিজ্য
শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট
সুরমার পাড় কেটে মাটি বাণিজ্য

সিলেটে সুরমা নদীর তীর কেটে চলছে মাটি নেওয়ার মচ্ছব। প্রভাবশালীরা তীর থেকে অবৈধভাবে মাটি কেটে নিয়ে বিক্রি করছেন বিভিন্ন আবাসিক প্রকল্প ও ইটভাটায়।

এতে বর্ষা মৌসুমে ভয়াবহ নদী ভাঙনের আশঙ্কা তীরবর্তী জনপদের মানুষের। দিনদুপুরে শ্রমিকদ্বারা মাটি কেটে ট্রাক ও ট্রলি দিয়ে পরিবহন করা হলেও রহস্যজনক কারণে নীরব রয়েছে প্রশাসন। স্থানীয়দের দাবি, নদীর তীর থেকে মাটি কাটা বন্ধ করা না গেলে বর্ষাকালে তীরবর্তী রাস্তাঘাট ও স্থাপনা ভেঙে পড়বে।

সিলেট শহরের বুক চিরে বয়ে গেছে সুরমা নদী। বর্ষায় কানায় কানায় পূর্ণ থাকলেও শীতকালে শুকিয়ে তলানিতে ঠেকে নদীর পানি। দেখা দেয় বিশাল চর। এ সুযোগে প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে নদীর তীর ও চর কেটে করেন মাটি বাণিজ্য।

সরেজমিনে নগরীর কুশিঘাট থেকে মুক্তির চক পর্যন্ত এলাকার অন্তত ২০টি স্থানে এভাবে মাটি উত্তোলন করতে দেখা গেছে। মুক্তির চক এলাকায় নদীর তীর থেকে মাটি উত্তোলন করে তা পাশের এমএইচবি ব্রিকস ফিল্ডে ফেলতে দেখা গেছে। ওই এলাকায় নগরীর মাছিমপুরের দেলোয়ার হোসেন মাটি উত্তোলন করছেন বলে মাটি কাটার কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার জানিয়েছেন। তিনি পাশের একটি ইটভাটারও মালিক।

কুশিঘাটের হীরা মিয়া ও মুক্তির চকের আবদুস সালাম জানান, নদীর তীর থেকে দেদার মাটি কাটার ফলে তাদের এলাকা ঝুঁকির মুখে পড়েছে। বর্ষায় নদী পানিতে ভর্তি হলে ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিতে পারে।

এদিকে, নদীর তীর কেটে মাটি উত্তোলনে সংশ্লিষ্টরা আশ্রয় নেন নানা কূটকৌশলেরও। প্রশাসনের অভিযান এড়াতে কখনো তারা নদীর তীর দাবি করেন নিজেদের মালিকানাধীন জায়গা হিসেবে। আবার কখনো মসজিদ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করার কথা বলে মাটি উত্তোলন করেন তারা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow