Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০১৭ ২৩:১২
রাজশাহীতে উৎপাদনে যাচ্ছে সোয়েটার কারখানা ‘সাঁকোয়াটেক্স’
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজধানীর বাইরে রাজশাহীতে নির্মাণাধীন বৃহৎ সোয়েটার কারখানা ‘সাঁকোয়াটেক্স’ উৎপাদনে যাচ্ছে আগামী সেপ্টেম্বরে। পোশাকশিল্পের অন্যতম এ কারখানা উদ্বোধনের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। রাজশাহী নগরের বিসিক শিল্প এলাকায় কারখানাটি স্থাপন করেছে এনা গ্রুপ। এটি স্থাপনের ফলে উত্তরাঞ্চলের ব্যবসার দ্বার উন্মুক্ত হবে। সেই সঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়েই কর্মসংস্থান হবে অন্তত ১০ হাজার লোকের।

এ উপলক্ষে শনিবার কারখানা পরিদর্শনে এসে এনা গ্রুপের চেয়ারম্যার ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, কারখানাটি হবে রাজশাহী তথা উত্তরাঞ্চলের প্রথম সোয়েটার কারখানা। এর আগে এ জেলায় ছোট ও মাঝারি আকারের শিল্প-কারখানা স্থাপন করা হলেও বড় কোনো কারখানা গড়ে ওঠেনি। সাঁকোয়াটেক্সের প্রকল্প পরিচালক আসিফ রহমান জানান, কারখানার প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি জাপান থেকে আমদানি ও প্রশিক্ষণ ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। সর্বশেষ শনিবার যন্ত্রপাতি কারখানায় ঢুকেছে। শতভাগ রপ্তানিমুখী কারখানাটিতে জনবল নিয়োগের কাজও শুরু হয়েছে। সাঁকোয়াটেক্সের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জানান, রাজশাহীতে গ্যাস পৌঁছানোর ফলে কারখানাটি স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ জন্য নগরের বিসিক শিল্প এলাকাকে নির্বাচিত করে সেখানে নির্মাণকাজও প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার সরেজমিন নগরের বিসিক শিল্প এলাকায় গিয়ে কারখানা স্থাপনের জন্য ৬ তলা ভবনের নির্মাণকাজ চলতে দেখা যায়। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই এই গার্মেন্ট কারখানার উদ্বোধন করা হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। ভবনের নির্মাণকাজ প্রায় শেষের পথে। এ ছাড়া যন্ত্রপাতি স্থাপনের কাজও চলছে। তাদের ভাষ্যমতে, কারখানাটিতে প্রথম দিকে প্রতি মাসে এক লাখ ২০ হাজার সোয়েটার তৈরি করা সম্ভব হবে। পরে তা বাড়িয়ে ১০ লাখে উন্নীত করা হবে।

এনা গ্রুপের উপব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোসলেহ উদ্দিন জানান, সোয়েটার কারখানা স্থাপনের সব প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে। এ বছরের সেপ্টেম্বরের দিকে কারখানাটি উৎপাদনে যাবে। এটি হবে রাজশাহী তথা উত্তরাঞ্চলের প্রথম গার্মেন্ট কারখানা। এখানে তৈরি সোয়েটার দেশের বাইরে রপ্তানি করা হবে বলে তিনি জানান। এ ছাড়া কারখানাটি তৈরির জন্য জাপানের সিমা সেকি কোম্পানি থেকে জ্যাকার্ড নিটিং মেশিন আমদানি করা হয়েছে। সেগুলো স্থাপনের কাজও এখন সম্পন্নের পথে। এদিকে বিভাগীয় শহর রাজশাহীতে এ ধরনের বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠান স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়ায় আশার আলো দেখছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। রাজশাহী রেশম মালিক সমিতির সভাপতি লিয়াকত আলী বলেন, রাজশাহীতে নানা প্রতিকূলতার কারণে এত দিন ভারী শিল্প গড়ে ওঠেনি। তবে এনা গ্রুপই প্রথম গার্মেন্ট কারখানার মতো ভারী শিল্প-কারখানা গড়ে তুলছে। এটি চালু হলে এ অঞ্চলের শিল্প খাতে নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে। এনা গ্রুপের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এমপি জানান, সম্ভাবনা থাকার পরও স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও রাজশাহীতে ভারী কোনো শিল্প-কারখানা গড়ে ওঠেনি। শিল্প-কারখানায় পিছিয়ে থাকা রাজশাহীকে বেছে নিয়ে এ কারখানা স্থাপন করা হচ্ছে। এতে অনেক কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow