Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১১ জুলাই, ২০১৮ ২৩:৩০
ভুলে ভুলে যাচ্ছে প্রাণ
বাড়ছে চিকিৎসকের অবহেলা প্রতিকার নেই
রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম
bd-pratidin

চট্টগ্রামে একের পর এক বেড়েই যাচ্ছে ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর সংখ্যা। দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে লাশের মিছিল। চিকিৎসকের অবহেলা বা ভুলে এসব রোগী মারা গেলেও এর কোনো প্রতিকার হচ্ছে না। অভিযোগ নিয়ে রোগী কিংবা রোগীর স্বজনরা বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলে (বিএমডিসি) যাওয়ার নিয়ম থাকলেও নানা কারণে সেখানে অনেকেই যান না। আবার হাতেগোনা কিছু অভিযোগ করা হলেও আশানুরূপ প্রতিকার মিলছে না। জানা যায়, গত ২৮ জুন সামান্য গলা ব্যথা নিয়ে নগরের ম্যাক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয় দৈনিক সমকালের সিনিয়র রিপোর্টার রুবেল খানের মেয়ে রাইফা খানকে। কিন্তু পরদিনই ভুল চিকিৎসা এবং দায়িত্বরত চিকিৎসকের অবহেলায় রাইফা খানের মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন রুবেল। এ নিয়ে কোনো প্রতিকার তো নয়ই, উল্টো চট্টগ্রাম বিএমএ অভিযুক্ত হাসপতাল ও দায়িত্বরত চিকিৎসকদের পক্ষ নিয়ে চিকিৎসা বন্ধ করে আন্দোলন করছে। রুবেল খান অভিযোগ করে বলেন, ‘ম্যাক্স হাসপাতালের চিকিৎসকের অবহেলা ও ভুল চিকিৎসায় আমার মেয়ের মৃত্যু হয়েছে।’ অন্যদিকে, নগরীর প্রবর্তক মোড়ের বেসরকারি এএফসি ফরটিস হাসপাতালে গত মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টার দিকে চিকিৎসকের অবহেলায় মো. লোকমান চৌধুরী (৭৫) মারা যান বলে অভিযোগ করেছেন তার পুত্র মো. জুয়েল। এ সময় রোগীর স্বজনরা দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের রেসপিরেটরি মেডিসিনের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শিমুল কুমার ভৌমিককে অবরুদ্ধ করে রাখেন। এসময় পুরো হাসপাতালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গত ২ জুলাই চমেক হাসপাতালের স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিভাগেও  চিকিৎসকের অবহেলায় লাভলী আকতার (২৪) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। বিএমডিসির সভাপতি মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, ‘অবহেলায় রোগী মৃত্যুর বিষয়টি কোনোভাবেই কাম্য নয়। কোনো রোগী অবহেলায় মৃত্যুবরণ করলে স্বজনরা বিএমডিসিতে অভিযোগ করতে পারবেন। ডিসিপ্লিন কমিটি তা নিয়ে বিশেষজ্ঞ  চিকিৎসক দিয়ে তদন্ত কমিটি করবেন। তারপর সেটি বিএমডিসির নির্বাহী কমিটিতে যাবে। অভিযোগ প্রমাণ হলে তার ব্যাপারে আইন মতে ব্যবস্থা গ্রহণ করি।’

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, ‘ভুল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর বিষয়টি বাড়ছে। এ ব্যাপারে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে প্রমাণ মিললে শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু আমরাও চাই না কোনো রোগী অবহেলায় মারা যাক।’

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই পাতার আরো খবর
up-arrow