Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫৪
ঢাকায় ১০ টাকায় চার গ্রহ দর্শন
জিন্নাতুন নূর
ঢাকায় ১০ টাকায় চার গ্রহ দর্শন
bd-pratidin

শরতের মেঘমুক্ত আকাশে রাতের দিকে এখন জ্বলজ্বল করছে সুন্দর চাঁদ। তবে শুধু চাঁদই নয়, ঢাকা থেকে এখন টেলিস্কোপের সাহায্যে আকাশে স্পষ্টভাবে দেখা যাচ্ছে বৃহস্পতি, শুক্র, মঙ্গল ও শনি গ্রহ। মেঘমুক্ত আকাশে সন্ধ্যা থেকেই গোলাপি বর্ণের মঙ্গল গ্রহ, শনির বলয়ের অপূর্ব দৃশ্য, শুক্র এবং বৃহস্পতি গ্রহের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। ছোট থেকে বয়স্ক অনেকেই রাতের আকাশের বিরল এই দৃশ্য দেখতে ছুটে যাচ্ছেন রাজধানীর আগারগাঁওয়ের জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে। সেখানে অবস্থিত জাদুঘরটির খোলা ছাদের মানমন্দির থেকে আকাশ পর্যবেক্ষণের কর্মসূচি হিসেবে এই গ্রহ চারটি দেখানো হচ্ছে। গ্রহ-তারা নিয়ে অনুসন্ধিত্সু যে কেউ চাইলে বিরল এই দৃশ্য উপভোগ করতে পারবেন। বিজ্ঞান জাদুঘরে গিয়ে মাত্র ১০ টাকার টিকিট কেটে শক্তিশালী টেলিস্কোপের সাহায্যে আকাশে স্পষ্টভাবে চারটি গ্রহ দেখার সুযোগ মিলবে।

জাদুঘর কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, শরতের এই সময়টিতে বছরের অন্যান্য যে কোনো সময়ের তুলনায় আকাশ পরিষ্কার থাকে। আর বর্ষা শেষে আকাশও এখন ধুলা-বালিমুক্ত। ফলে এই সময়ে আকাশে থাকা গ্রহগুলোকে বছরের অন্যান্য যে কোনো সময়ের তুলনায় স্পষ্টভাবে দেখা যায়। তারা আরও জানান, টেলিস্কোপের সাহায্যে আকাশ দেখার এটাই সবচেয়ে ভালো সময়। এখন সন্ধ্যার আকাশে বৃহস্পতি, শনি, শুক্র ও মঙ্গল গ্রহ দেখা যাচ্ছে। আর এই বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে জাদুঘর কর্তৃপক্ষ গত ২৮ আগস্ট থেকে আগামী ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সূর্যাস্ত থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত চারটি গ্রহ দেখানোর ব্যবস্থা করেছেন। গত ২৮ আগস্ট সন্ধ্যায় এই আকাশ পর্যবেক্ষণ কর্মসূচির প্রথম দিনে বিজ্ঞান জাদুঘরের ছাদে তথা মানমন্দিরে গিয়ে দেখা যায় আগ্রহী অনেকেই গ্রহ দেখার জন্য ছুটে এসেছেন। তাদের মধ্যে আছে সব বয়সী দর্শক। তবে শিশুদের আগ্রহ ছিল বেশি। মা-বাবার সঙ্গে ধানমন্ডি থেকে গ্রহ দেখতে এসেছিল ঢাকার এক ইংরেজি মাধ্যমে শিক্ষার্থী অয়ন ও তার ছোটভাই আযান। টেলিস্কোপে গ্রহ দেখার সঙ্গে সঙ্গে হাততালি দিয়ে অয়ন তার মাকে উদ্দেশ করে বলে ওঠে, ‘বইয়ে যেমন শনি গ্রহের ছবি দেখেছি এখনো ঠিক তেমন দেখতে পাচ্ছি। গ্রহটিকে ঘিরে আবার বলয়ও দেখা যাচ্ছে।’ অয়নের মা সরকারি কর্মকর্তা শাহনাজ বেগম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখে ছেলেদের নিয়ে এখানে এসেছি। শিশুদের বিনোদনের জন্য ঢাকায় তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। আর বড়দের জন্যও এই ইভেন্টটি বেশ ভালো।

বিজ্ঞান জাদুঘরের কয়েকজন কর্মকর্তা বিশাল বিশাল তিনটি টেলিস্কোপের সাহায্যে এই আকাশ পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন। তারা বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, বাংলাদেশের মানুষের মনে আকাশ, গ্রহ, তারা নিয়ে আগ্রহ অন্যান্য দেশের তুলনায় কম। আর ফেসবুক-ইন্টারনেটের এই যুগে এসব বিষয় নিয়ে তারা খুব একটা জানতেও চায় না। এজন্য বিজ্ঞান জাদুঘর বিষয়টিকে মানুষের কাছে নিয়ে যাওয়া এবং এর প্রচারণার জন্য ১২ দিনের একটি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। তারা জানান, সন্ধ্যার দিকে আকাশ মেঘমুক্ত থাকলে গ্রহগুলো বেশ ভালোভাবে প্রত্যক্ষ করা যায়। আগ্রহীদের কেউ চাইলে অনুরোধ সাপেক্ষে চাঁদও ভালোভাবে প্রত্যক্ষ করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, এই কর্মসূচি ছাড়াও যে কেউ চাইলে বিজ্ঞান জাদুঘরে গিয়ে প্রতি শুক্র ও শনিবার সন্ধ্যায় আকাশ মেঘমুক্ত থাকা সাপেক্ষে ১০ টাকা টিকিটের বিনিময়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপের সাহায্যে চাঁদ, শুক্র, মঙ্গল, শনি ও বৃহস্পতি, অ্যান্ড্রোমিডা, গ্যালাক্সি, রিয়নেবুলা, সেভেন সিস্টার, জোড়াতারা ও তারার ঝাঁক পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ পাবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow