Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:৫৬

আয় বাড়ছে মোংলা বন্দরের

এক বছরে রাজস্ব আয় বেড়েছে ৫০ শতাংশ

বাগেরহাট প্রতিনিধি

আয় বাড়ছে মোংলা বন্দরের

মোংলা আন্তর্জাতিক সমুদ্রবন্দরে রাজস্ব আয়ের ধারাবাহিক বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। এক বছরের ব্যবধানে রাজস্ব আয় বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রাজস্ব আয় বৃদ্ধির পরিমাণ ছিল ১৫ শতাংশ। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে যা প্রায় ৫০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।  বেড়েছে বন্দরে বিদেশি জাহাজের আগমন ও কার্গো হ্যান্ডলিং। এক বছরের ব্যবধানে কনটেইনার আগমনের সংখ্যাও আড়াইগুণ বেড়েছে। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান অর্থ ও হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান জানান, ২০১২-১৩ অর্থবছরে  বন্দরে বিদেশি জাহাজ এসেছিল ২৮২টি। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এ সংখ্যা দাঁড়ায় ৬২৩টিতে। একই সঙ্গে বন্দরে রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পায় ২২৬ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বন্দরে আসে ৭৮৪টি জাহাজ। এ সময় কার্গো হ্যান্ডলিং হয় ৯৭ দশমিক ১৬ লাখ মেট্রিক টন। রাজস্ব আদায় হয় ২৭৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে স্থবির হয়ে পড়া বন্দরে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে রাজস্ব ব্যয় বাদে নিট মুনাফা ছিল সাড়ে ৭১ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে নিট মুনাফা হয়েছে ১০৯ কোটি টাকা। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর এ কে এম ফারুক হাসান বলেন, আমদানি-রপ্তানিতে আশার সঞ্চার করেছে মোংলা আন্তর্জাতিক সমুদ্রবন্দর। চট্টগ্রাম বন্দরের তুলনায় মোংলা বন্দরে কনটেইনার আনার খরচ বেশি। এছাড়া নাব্য সংকটের কারণে আশানুরূপ জাহাজ ভিড়তে পাওে না। জটিলতার অবসান হলে বন্দরে আমদানি-রপ্তানি আরও বাড়বে। মোংলা বন্দর উন্নয়নে ১০টি প্রকল্প অনুমোদন হয়ে ৭টি চলমান রয়েছে। ভারত ও চীনের অর্থায়নে একাধিক প্রকল্প চলমান রয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে মোংলা বন্দরের গতিশীলতা আরও বাড়বে। বন্দরের উন্নয়নে সরকার সার্বিক বিষয় নিয়মিত মনিটরিং করছেন বলেও জানান বন্দর চেয়ারম্যান।


আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর