Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১১ মার্চ, ২০১৮ ০৭:০১ অনলাইন ভার্সন
পর্দা নামলো ফ্রিডম স্যানিটারি ন্যাপকিন উইল ফেস্ট
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
পর্দা নামলো ফ্রিডম স্যানিটারি ন্যাপকিন উইল ফেস্ট
bd-pratidin

আন্তর্জাতিক নারী দিবসে শুরু হওয়া তিনদিনের উৎসব উইল ফেস্ট-এর সমাপনী অনুষ্ঠানে অনুস্মরণীয় নারীদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। কর্মক্ষেত্রে এবং সামাজিক অবস্থানে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে দেয়া হয়েছে এই পুরস্কার । 

ওমেন ইন লিডারশীপ এর এই আয়োজনে প্রদত্ত এই পুরস্কার পরিবেশিত হয়েছে ফ্রিডম স্যানিটারি ন্যাপকিন এর সৌজন্যে।

শনিবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা আয়োজিত জমকালো এক অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক সম্পর্কবিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন এসিআই কনজিউমার ব্র্যান্ডস এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ আলমগীর। অতিথিদের মূল্যবান বক্তব্যের পাশাপাশি বক্তব্য রাখেন ওমেন ইন লিডারশীপের প্রেসিডেন্ট নাজিয়া আন্দালিব প্রিমা।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ইস্টার্ন ব্যাংক লি. এর রিটেইল ব্যাংকিং এর ভারপ্রাপ্ত প্রধান এম খোরশেদ আনোয়ার, বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরিফুল ইসলামসহ আরও অনেকে।

চতুর্থবারের মত এই আয়োজনে এবার পুরস্কৃত করা হয় ১৩ জন নারী, ১ জন পুরুষ এবং ১টি প্রতিষ্ঠান কে। পাশাপাশি বিশেষ স্বীকৃতি প্রদান করা হয় ১৩ জন নারীকে এবং ১টি প্রতিষ্ঠানকে। এবছর ইন্সপায়ারিং ওমেন এওয়ার্ড-এ পুরস্কারপ্রাপ্তদের মধ্য 'ডায়নামিক ওমেন অব দ্য ইয়ার' ক্যাটাগরীতে পুরস্কৃত হন এমসিসিআই ঢাকা এর প্রেসিডেন্ট ব্যারিস্টার নিহাদ কবির।

শিক্ষাক্ষেত্রে অসামান্য অবদানের জন্য 'ইন্সপায়ারিং ওমেন ইন একাডেমিয়া' পুরস্কার লাভ করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। নারীদের জন্য সবচেয়ে অনুকূল কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করে 'মোস্ট ফিমেল ফ্রেন্ডলি অর্গানাইজেশন' পুরস্কার লাভ করেন ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ। 

এ বছর ইন্সপায়ারিং ওমেন এওয়ার্ডের জন্য মনোনয়ন জমা পড়েছিল ২১৯টি। বিচক্ষণ বিচারকমণ্ডলীর সমন্নয়ে গঠিত ২টি জুরি সেশনের মাধ্যমে বিজয়ীদের নির্বাচিত করা হয়। 

নারীদের জন্য আয়োজিত এই উৎসবে ছিল নারী বিষয়ক নানা আয়োজন, যার মধ্যে ছিল ওমেন লিডারশীপ সামিট। তৃতীয় বারের মত আয়োজিত এই সামিটে ছিল পাঁচটি মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন ও চারটি প্যানেল আলোচনা। সামিটে দেশী-বিদেশী বক্তারা নারীর ক্ষমতায়ন ও এ সম্পর্কিত প্রতিবন্ধকতা দূরীকরণ এর উপায় নিয়ে আলোচনা করেন। 

সামিটে বক্তব্য রাখেন ফোর্বস মিডিয়া-এর ইন্ডিয়া এডিটর নাজনীন কারমালী, ফিলিপাইনসের ফিউচার কন্সিডারেশনসের ডিরেক্টর বেথ ম্যাকডোনাল্ড, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব ওমেন এর উপাচার্য অধ্যাপক নির্মলা রাও, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-এর ডেভেলপমনেন্ট স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. রাশেদ আল মাহমুদ তিতুমীর, এবং গ্রামীনফোনের প্রধান কর্পোরেট এফেয়ার্স কর্মকর্তা মাহমুদ হোসেন প্রমুখ। 

এছাড়াও তিন দিনব্যাপী প্রায় ২০টি আলোচনার আয়োজন করা হয় যেখানে কথা বলা হয় নারীদের বিভিন্ন ব্যক্তিগত, সামাজিক, পারিবারিক ও কর্মক্ষেত্র সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে। পাশাপাশি, কর্মক্ষেত্রে নারীদের আরও যৌগ্য করে তোলার লক্ষ্যে আয়োজন ছিল প্রফেশনাল ট্রেইনিং বা প্রশিক্ষণ-এর। আরও ছিলো তরুণ নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ স্টার্টআপ টক। 

এ উৎসবে ছিল বিভিন্ন সাংস্কৃতিক আয়োজন। ছিল একটি নারীকেন্দ্রিক প্রদর্শনী যেখানে নারীদের জীবনে বাঁধা এবং সেই বাঁধা অতিক্রম করে সাফল্য অর্জনের গল্পগুলো আলোকচিত্র, দৃশ্যচিত্র এবং নারীদের ব্যবহৃত পোশাক প্রদর্শনীর মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে। 

প্রদর্শনীটি সব শ্রেণির মানুষের মনযোগ আকর্ষণ করেছে। ছিল পারফর্মেন্স আর্ট, গান, নাচ ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক আয়োজন। 

ওমেন ইন লিডারশিপের উদ্যোগে আয়োজনে ছিল বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম এবং এর সার্বিক সহযোগিতায় ছিল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ব্যাংকিং পার্টনার ছিল ইস্টার্ন ব্যাংক লি. এবং এক্সিবিশন পার্টনার ছিল এলিট পেইন্টস। সমর্থনে ছিল গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স, র‌্যাংগস তোশিবা এবং স্বপ্ন। 

রিফ্রেশমেন্ট পার্টনার ড্যানিশ। এই উদ্যোগে পার্টনার ছিল গ্রামীণফোন, মেট্রোপলিটন চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এমসিসিআই) ঢাকা, ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফআইসিসিআই), গুগল বিজনেস গ্রুপ ঢাকা, জেসিআই বাংলাদেশ, স্টার্টআপ গ্রাইন্ড এবং ওমেন টেকমেকারস বাংলাদেশ। 

আয়োজনে আরও রয়েছে র্স্ট্যাটেজিক পার্টনার দ্য ডেইলি স্টার এবং কালারস এফএম, ইনোভেশন পার্টনার হোয়াইট বোর্ড, লিডারশীপ ডেভেলপমেন্ট পার্টনার বোল্ড, গ্রো এন এক্সেল ও লাইটহাউজ বাংলাদেশ; মিডিয়া পার্টনার নেক্সট স্টেপ, লাইফস্টাইল ও একাত্তর টিভি, ইয়ুথ এনগেজমেন্ট পার্টনার শাউট, রেডিও পার্টনার রেডিও টুডে, পিআর পার্টনার মাসটহেড পিআর, টেকনোলজি পার্টনার আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড, ডিজিটাল পার্টনার মেলোনেডস এবং ব্র্যান্ডিং পার্টনার টেরাকোটা।  

বিডি প্রতিদিন/১১ মার্চ ২০১৮/আরাফাত

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow