Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • ২ জুন থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু
  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বন্য হাতির আক্রমণে ১০ মাসে নিহত ১৩
  • সাতক্ষীরায় যুবলীগ-শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ২
  • তাসফিয়া হত্যায় 'তৃতীয় পক্ষের' ইন্ধন নিয়ে সন্দেহ পরিবারের
  • বান্দরবানে পাহাড় ধসে নারীসহ ৫ শ্রমিক নিহত
  • সাভারে কাউন্সিলরের লোকজনের সাথে ছাত্রলীগের সংর্ঘষ-গুলি, আহত ২০
  • কেরালায় নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৯ জনের মৃত্যু
  • নাজিব পরাজয় মেনে নিতে চাননি: আনোয়ার ইব্রাহিম
  • রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া
  • মাদকবিরোধী অভিযান; রাতে ৭ জেলায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ৯
প্রকাশ : রবিবার, ৫ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৪ জুন, ২০১৬ ২৩:৪২
শুধু সদস্য প্রার্থীর ব্যালট পেয়েছেন ভোটাররা
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
শুধু সদস্য প্রার্থীর ব্যালট পেয়েছেন ভোটাররা

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া-কাজিপুর, শাহজাদপুর ও চৌহালীর ১৯ ইউনিয়নের প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের সবার সামনে নৌকায় সিল মারতে বাধ্য করা হয়েছে। কিছু কেন্দ্রে চেয়ারম্যান পদের ব্যালট পেপারে আগে থেকেই সিল মেরে রাখা হয়েছে। ভোটারদের হাতে শুধু সদস্য পদের দুটি ব্যালট পেপার দেওয়া হয়েছে। ব্যালট ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে শাহজাদপুরের পাথালিয়াপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। হাটিকুমরুল ইউনিয়নের মগড়া চড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট শুরুর ঘণ্টা খানেক পর গিয়ে দেখা যায়, প্রিজাইডিং ও সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারদের সহযোগিতায় চেয়ারম্যানের ব্যালট পেপারে নৌকায় সিল মেরে রেখেছেন নৌকার সমর্থকরা। ভোটাররা শুধু সংরক্ষিত ও সদস্য পদের দুটি ব্যালটে সিল দেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। পাশের চৌরাস্তা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়েও চোখে পড়ল একই দৃশ্য। ওই কেন্দ্রে ভোটার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বেলা সাড়ে ১২টায় কেন্দ্রে  এসে দেখি চেয়ারম্যানের ব্যালটে নৌকা প্রতীকে সিল মারা। শুধু টিপসহি দিয়ে মেম্বর পদের ভোট দিয়েছি। সলঙ্গা ইউনিয়নের বনবাড়ীয়া কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় পোলিং অফিসাররা শুধু মেম্বর পদের দুটি ব্যালট পেপারে ভোট গ্রহণ করছেন। কয়ড়া ইউনিয়নের কয়ড়া সরাতলা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় নৌকা প্রতীকের এজেন্টরা ভোটারদের দিয়ে জোরপূর্বক সিল মেরে নিয়ে নিজেরাই বাক্সে ভরছেন। শাহজাদপুরের কৈজুরী ইউনিয়নের প্রতিটি কেন্দ্রেই একই অবস্থা। তবে ভোট সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেন উল্লাপাড়া, শাহজাদপুর, চৌহালী ও কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow