Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৩
লালমনিরহাটে ৩০৫ লেভেল ক্রসিং অরক্ষিত, দেড় বছরে নিহত ৫৮
লালমনিরহাট প্রতিনিধি

রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চল লালমনিরহাট বিভাগের অধীনে ৫৪০ কিলোমিটার রেলপথে রয়েছে ৫২৫টি লেভেল ক্রসিং। এর মধ্যে ৩০৫টি অরক্ষিত।

অরক্ষিত এসব ক্রসিংয়ে কোনো গেট ও গেটম্যান না থাকায় নিয়মিতই ঘটছে দুর্ঘটনা। গত দেড় বছরে এসব লেভেল ক্রসিংয়ে ৫৮ জন প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন ২৬৭ জন। এ ছাড়া প্রতিদিনই ক্ষতি হচ্ছে জানমালের। সমস্যায় পড়তে হচ্ছে গাড়িচালক ও পথচারীদের। অরক্ষিত এসব ক্রসিংয়ে গেট নির্মাণ, গেটম্যান নিয়োগ ও সিগন্যালিক ব্যবস্থা চালু না করলে প্রতিদিনই বিনষ্ট হবে মানুষের জানমাল। রেলওয়ে সূত্র জানায়, চলতি বছরের জানুয়ারিতে শহরের ব্যস্ততম জেল রোডের লেভেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের সঙ্গে ধাক্কা লাগে একটি পাওয়ার টিলারের। এখানেই ট্রেনের ধাক্কায় দুই পা হারান এক মহিলা। গুরুতর আহত হন এক রিকশাচালক। শহরের বানভাসা লেভেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় দুমড়ে মুচড়ে যায় একটি ট্রাক। মার্চে এখানেই শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে এসে ট্রেনে কাটা পড়ে প্রাণ হারান আবু হোসেন নামে এক যুবক। নবীনগর লেভেল ক্রসিংয়ে এপ্রিলে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ হারান এক অটোচালক, আহত হন আরও ছয় যাত্রী। অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোয় এ রকম দুর্ঘটনা প্রায়ই ঘটছে। গত বছর শহরের অদূরে মণ্ডলের হাট লেভেল ক্রসিংয়ে ট্রেনের সঙ্গে বাসের ধাক্কায় মারা যান দুজন। দুমড়ে মুচড়ে যায় বাসটি। অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংগুলোয় কোনো গেট ও গেটম্যান না থাকায় সিগন্যালিকের অভাবে এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ চলতি বছরের মে মাসে কাকিনা রেলগেটে কোনো গেটম্যান না থাকায় ট্রেন-ট্রাক সংঘর্ষে ২১ জন আহত হন। রেলওয়ের এক জরিপে জানা গেছে, ৩০৫টি অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে গত দেড় বছরে ৫৮ ব্যক্তি প্রায় হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ২৬৭ জন। রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চল লালমনিরহাট বিভাগের অধীনে উত্তরের আট জেলায় ৫২৫টি লেভেল ক্রসিংয়ের মধ্যে ৩০৫টিই অরক্ষিত। তার মধ্যে লালমনিরহাটে ২৫, কুড়িগ্রামে ৩০, রংপুরে ৪৫, বগুড়ায় ৫৫, দিনাজপুরে ৫২, গাইবান্ধায় ৩৬, ঠাকুরগাঁওয়ে ২৫ ও পঞ্চগড়ে ৩৭টি। ২২০টি নিরাপদ ক্রসিংয়ের মধ্যে ৮৫টি চলছে রেলওয়ের নিয়মিত স্টাফ দিয়ে আর বাকি ১৩৫টি দিনমজুরি ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া অদক্ষ জনবল দিয়ে। তবে রেল কর্তৃপক্ষ বলছে, ৫২৫টি ক্রসিংয়ের মধ্যে ১০২টিই অবৈধ। কারণ এলজিইডি, সড়ক ও জনপথ, জেলা পরিষদ, পৌরসভা অথবা ইউনিয়ন পরষিদ রেলওয়ের অনুমতি না নিয়ে রাস্তা নির্মাণ করে এসব ক্রসিং তৈরি করেছে। এসব অবৈধ ক্রসিংয়ের সব দায়দায়িত্ব তাদের ওপরই বর্তায়। এজন্য রেলওয়ে দায়ী নয়।

লালমনিরহাট রেলওয়ে বিভাগীয় ম্যানেজার মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম জানান, অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়ে সিগন্যালিক ব্যবস্থা চালুর জন্য গেট নির্মাণ ও গেটম্যান নিয়োগের ব্যাপারে ডিপিপি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow