Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১১ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ জুন, ২০১৬ ০১:৫৯
বীজ সংকটে তাল-নারিকেল গাছ হারিয়ে যাওয়ার শঙ্কা
মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

মানিকগঞ্জে তালের শাস ও ডাবের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় অবাদে বিক্রি হচ্ছে ডাব ও তালের শাস। নারিকেল ও পাকা তালের চাহিদা না থাকা এবং দাম কম হওয়ায় গাছের মালিকরা কাঁচা তাল এবং ডাব বিক্রি করে দিচ্ছেন।

এতে বীজের অভাবে জেলায় নারিকেল ও তাল গাছের বংশবৃদ্ধি ব্যাহত হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে তাল ও নারিকেল গাছ অদূর ভবিশ্যতে জেলা থেকে হাড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে সচেতন মহল। জেলা কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আলীমুজ্জামান বিলেন, ‘আমাদের কাছে তাল ও নারিকেল গাছের সঠিক পরিসংখান নেই। এভাবে যদি তাল- নারিকেল পাকার আগে শেষ হয়ে যায় তাহলে এর বংশবৃদ্ধি ব্যাহত হবে। এবার বৃক্ষরোপন মৌসুমে রাস্তার ধারে আমরা তাল ও নারিকেল চারা রোপন করবো। ’ তিনি আরোও বলেন তাল ও নারিকেল গাছ পরিবেশ বক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা পালন করে। এ গাছ রক্ষায় সরকারসহ সচেতন মহলকে এগিয়ে আসাতে হবে। তালের শাস বিক্রেতা রমিজ, রহমান, আরজুসহ অনেকে জানান, সাধারণত ভাদ্র মাস থেকে তাল পাকা শুরু করে। এক সঙ্গে গাছের সব তাল পাকে না। এক-দুটি পেকে একাই মাটিতে পড়ে। বর্ষা মৌসুমে তাল পাকে বলে প্রায়ই তা পানিতে ভেসে যায়। গাছের মালিক তেমন একটা পায় না। তাছাড়া পাকা তালের চেয়ে কাঁচা তালের দাম বেশি হওয়ায় মালিকরা গাছেই ব্যাপরীদের কাছ বিক্রি করে দেন। একবারে অনেক টাকা পাওয়া যায় বলে তারা কাঁচা তাল বিক্রিতে বেশি আগ্রহী। মানিকগঞ্জের নতুন বস্তির কামরুদ্দিন রেজা বলেন, গাছ থেকে নাড়িকেল বিক্রি করতে চাইলে ব্যাপারী পাওয়া যায় না। ডাব কেনার জন্য প্রতিদিন ব্যাপারী বাড়িতে আসে। নগদ টাকায় তারা গাছ থেকে ডাব কিনে নিয়ে যায়

এই পাতার আরো খবর
up-arrow