Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৪
স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই নেতাকে বহিষ্কার
বাউফলে মা-মেয়েকে গণধর্ষণ
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বাউফলে হিন্দু মা ও মেয়েকে গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই নেতাকে গতকাল দল থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এদিকে এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত যুবক মোহাম্মদ নুরে আলম মল্লিক আদালতে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার রাতে মা ও মেয়েকে গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত নাজিরপুর ইউনিয়নের রায় তাঁতেরকাঠি গ্রামের ১ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি মোহাম্মদ নুরে আলম মল্লিক ও সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আবদুর রহিমকে গতকাল দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের জরুরি সভায় তাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হারুন-অর রশিদ জানান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজের নির্দেশে অভিযুক্তদের দল থেকে সমায়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। এদিকে বাউফল থানার ওসি (তদন্ত) সাইদুল ইসলাম জানান, গতকাল দুপুরে পটুয়াখালী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষণের শিকার মা ও মেয়ে এবং গ্রেফতারকৃত আসামি নুরে আলম মল্লিককে হাজির করা হয়। এ সময় আসামি নুরে আলম মল্লিক আদালতের বিচারক আমিরুল ইসলামের কাছে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেন। ধর্ষিত মা এবং মেয়েও আদালতে ধর্ষণের বিষয়ে জবানবন্দি দেন। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে অভিযুক্ত নূরে আলম বলেন, গত শনিবার রাতে কাছিপাড়া ইউনিয়নের উত্তর কাছিপাড়া গ্রামের এক সংখ্যালঘু মা (৩৮) ও তার কলেজ পড়ুয়া মেয়েকে (১৭) জোরপূর্বক একটি ট্রলারে তুলে ভরিপাশা পয়েন্টে তেঁতুলিয়া নদীর চর ঈশানের কাছে নিয়ে ছয়জন মিলে গণধর্ষণ করেন। উল্লেখ্য, পরদিন রবিবার এ ঘটনায় ছয়জনকে আসামি করে বাউফল থানায় মামলা দায়ের হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাউফল থানার ওসি (তদন্ত) সাইদুল ইসলাম জানান, ধর্ষণে জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow