Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ২৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৬ জুন, ২০১৬ ২২:৫৯
মহিলাকে ন্যাড়া করে নির্যাতন
উদ্ধার হয়নি তুলে নেওয়ার ১৬ দিনেও
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলায় এক মহিলাকে দিনদুপুরে ন্যাড়া করাসহ নির্যাতন ও অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার ১৬ দিনেও নির্যাতনের শিকার অজবালাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। উল্টো মামলা তুলে নেওয়াসহ প্রাণনাশের হুমকিতে আতঙ্কিত ভুক্তভোগীর পরিবার। পুলিশ বলছে, অজবালাকে উদ্ধার ও দোষীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। জানা যায়, গত ১০ জুন বিকালে প্রকাশ্যে অজবালার (হিন্দু ধর্মালম্বী) পা ভেঙে রক্তাক্ত করে সাবেক স্বামী খবির। এর পর মাথা ন্যাড়া করে চুল পুড়িয়ে দেয়। এক পর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর থেকে নিখোঁজ অজবালা। এ নির্যাতনের অভিযোগ রানীশংকৈলের বসতপুর গ্রামের প্রভাবশালী কালু হাজীর ছেলে খবিরের বিরুদ্ধে। ওই পরিবারের ভয়ে সংবাদকর্মীর সামনে মুখ খুলতেও ভয় পান এলাকাবাসী। ঘটনার পর ১২ জুন থানায় অভিযোগ দেন অজবালার মা। এরপরই একটি পক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দিতে উঠেপড়ে লাগে। অবশেষে ১৫ জুন খবিরসহ চারজনকে আসামি করে রানীশংকৈল থানায় নির্যাতন ও অপহরণ মামলা হয়। পর দিন খবিরের ভাই আমিনুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অজবালার মেয়ে গীতা বলেন, ঘটনার ১৬ দিনেও মা উদ্ধার হয়নি। উল্টো মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে খবিরের পরিবার। রানীশংকৈল থানার ওসি রেজাউল করিম বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার ফারহাদ আহমেদ জানান, মামলা তার নিজস্ব গতিতে চলবে। উল্লেখ্য, হিন্দু ধর্মালম্বী টুনকু রায়ের সঙ্গে দুই বছর আগে বিয়ে বিচ্ছেদ হয় অজবালার। ধর্ম পরিবর্তন করে মুসলমান হয়ে খবিরকে বিয়ে করেন তিনি। খবির আট মাস ঘর সংসার করে অজবালাকে তালাক দেন। পরে হিন্দুধর্ম গ্রহণ করে আবার পরিবারে ফিরে যান অজবালা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow