Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৬ ০০:১২
স্লুইস গেট ভেঙে ১৯ গ্রাম প্লাবিত
গাইবান্ধা প্রতিনিধি

উজান থেকে আসা ঢলে বেড়েছে যমুনা নদীর পানি। পানির চাপে গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নে স্লুইস ভেঙে প্লাবিত হয়েছে তিন ইউনিয়নের ১৯ গ্রাম।

এসব গ্রামের ফসলি জমি, পাট খেত, বীজতলাসহ অন্তত ৩০০ হেক্টর জমি তলিয়ে গেছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে বহু পরিবার। হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের অবহেলায় গ্রামগুলো প্লাবিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কয়েক হাজার কৃষক। হুমকিতে আছে হলদিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ত্রিতলা কানাইপাড়া মাদ্রাসা। কুড়িগ্রামে পানিবন্দী ১০ হাজার মানুষ : কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, বৃষ্টি ও উজানের ঢলে কুড়িগ্রামে ধরলা ও তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সেতু পয়েন্টে ধরলার পানি প্রবাহিত হচ্ছে বিপদসীমার দিয়ে। গতকাল পর্যন্ত ধরলার অববাহিকায় ফুলবাড়ী, কুড়িগ্রাম সদর এবং তিস্তার অববাহিকার রাজার হাট উপজেলার চর ও নিচু এলাকাগুলো প্লাবিত হয়ে ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিভাগ সূত্র জানায়, বন্যাকবলিত পরিবারের মধ্যে আট হাজার ৪৪৯ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা ঈদের আগে বিতরণ করা হবে। লালমনিরহাটে তীব্র নদী ভাঙন : লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানান, গতকাল সকালে হাতিবান্ধা উপজেলার সিন্দুনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি তিস্তার গর্ভে বিলীন হয়েছে। ধরলায় চলে গেছে স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি করা অর্ধ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা।

up-arrow