Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১৫
লক্ষ্মীপুরে অর্ধশতাধিক ক্লিনিকে অপচিকিৎসা
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুরে দন্ত চিকিৎসার নামে জেলার বিভিন্ন স্থানে অর্ধশতাধিক ক্লিনিকে চলছে অপচিকিৎসা। জেলার রায়পুর শহরের গাজী শপিং কমপ্লেক্স ভবনের সামনে গিয়ে দেখা যায় ল্যাবএইড ডেন্টাল ক্লিনিক নামের একটি সাইনবোর্ড ঝুলে আছে।

সাইনবোর্ডে লেখা আছে (ডেন্টাল সার্জন) ডাক্তার মো. ওয়াহিদুর রহমান মুরাদ, এক্স কনসালটেন্ট সাভার জেনারেল হাসপাতাল, আরও রয়েছে নানা পদবি। সাইনবোর্ডে লেখা অনুযায়ী ডেন্টাল সার্জন ও কনসালটেন্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে মুরাদ বলেন, ডেন্টাল সার্জন হচ্ছে দাঁতের ছোট ছোট যে কাজগুলো করা হয় তাই সার্জারি, আর যে এ কাজ করেন সেই সার্জন। কনসালটেন্ট ব্যবহার করা সম্পর্কে তিনি বলেন, ঢাকার একটি হাসপাতালে দুজন ডাক্তার রোগী দেখতেন, পরে তারা চলে যাওয়ার পর ১ বছর মেয়াদি একটা কোর্স শুরু করেন মুরাদ। পরে সেখানে থাকার সুবাদে হাসপাতালের লোকজন তাকে কনসালটেন্ট উপাধি দেয়। মুরাদের এমন ব্যাখ্যায়  আর  বোঝার বাকি থাকে না  তিনি প্রকৃত ডাক্তার নাকি ভুয়া।   এ ছাড়া ওই ক্লিনিকের ২০০ গজের মধ্যে রায়পুর চাঁদপুর সড়কের পূর্বপাশে ফাতেমা ডেন্টিস্ট পয়েন্ট নামের আরও একটি ক্লিনিক রয়েছে। এখানে বাইরে ডাক্তার আহমেদ শাহরিয়ার হাসান সোহেল নামের একজনের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে আল আমিন নামে এক ব্যক্তি ভিতরে রোগী দেখেন। সম্প্রতি এ ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে এসে অপচিকিৎসাসহ প্রতারণার শিকার হয়েছেন ফরিদগঞ্জের আনছুরা বেগম, নজির আহমদসহ অনেকে। অভিযোগ বিষয়ে জানতে ওই প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা যায় দরজায় তালা ঝুলছে। রায়পুরে আরও ১৫/২০টি, সদর, রামগঞ্জ, রামগতি, কমলনগর ও চন্দ্রগঞ্জে দন্ত চিকিৎসার নামে অর্ধশতাধিক ভুয়া ডাক্তারের চেম্বার রয়েছে বলে জানান ডেন্টাল সার্জন ডা. মো. আবু ইউছুফ ভূঁইয়া। লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের ডেন্টাল সার্জন ডাক্তার মো. ইউছুফ জানান, হাতুড়ে ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিয়ে মরণঘাতী হ্যাপাটাইটিস, সিপিলিস, গণোরিয়া, এইডস ও ক্যান্সারসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে অনেকেই জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন। এসব হাতুড়ে ডাক্তারের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়াসহ জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা উচিত বলে মত প্রকাশ করেন তিনি।

জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার গোলাম ফারুক ভূঁইয়া জানান, যদি কেউ নামের আগে ডাক্তার লেখার ইচ্ছা পোষণ করেন অথবা রোগী দেখার ইচ্ছা করেন তাহলে তাকে এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রি অর্জন করতে হবে, এরপর বিএমডিসিতে আবেদন করলে রেজিস্ট্রেশন দেওয়ার পর রোগী দেখতে পারবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow