Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৪২
রাজৈরে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক
ভাঙ্গায় পাঁচ বাড়ি ভাঙচুর
মাদারীপুর ও ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট বন্দরে জুয়া খেলার প্রতিবাদ করাকে কেন্দ্র করে গতকাল দুই দল গ্রামবাসীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক লোক। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৩০ রাউন্ড টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এ সময় মহাসড়কের উভয় পাশে দুই শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে তিন ঘণ্টাব্যাপী যানজট সৃষ্টি হয়। আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট বন্দরের হ্যামিলটন ব্রিজের গোড়ায় রাস্তার ওপর এক বছর ধরে একটি সংঘবদ্ধ দল জুয়া খেলে আসছিল। পৌর কমিশনার বাবুল বাঘার ভাই আরিফুর রহমান টিপু গতকাল এর প্রতিবাদ করেন। এ সময় জুয়াড়িরা তাকে বেদম মারপিট করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ঘোষালকান্দি ও পূর্বস্বরমঙ্গল গ্রামবাসী দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। তিন ঘণ্টাব্যাপী চলে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। অস্ত্র হাতে গ্রামবাসী সরদার শাজাহান স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রবেশ করলে শিক্ষার্থীরা ভয়ে ছোটাছুটি করতে থাকেন। সংঘর্ষ চলাকালে মহাসড়কের দুই দিকে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে মাদারীপুর জেলা প্রশাসক কামালউদ্দিন বিশ্বাস, রাজৈর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান খান, ইউএনও মিজানুর রহমান, পৌর মেয়র শামীম নেওয়াজ মুন্সি ঘটনাস্থলে আসেন। তারা উভয়পক্ষের সঙ্গে কথা বলে রাস্তার ব্যারিকেড তুলে দিলে যানবাহন চলাচল শুরু হয়। ইউএনও জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। মাদারীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সরোয়ার হোসেন বলেন, দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশ মোতায়েন আছে।

এদিকে, ফরিদপুরের ভাঙ্গায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন। এ সময় ভাঙচুর করা হয় পাঁচটি বাড়ি। ঘটনাটি ঘটে গতকাল সকালে উপজেলার গজারিয়া গ্রামে। পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, দীর্ঘদিন ধরে এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ভাঙ্গা পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর এমদাদুল হক বাচ্চুর সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজ্জাক ফকিরের বিরোধ চলছে। এ নিয়ে গত দুই বছরে কয়েক দফা সংঘর্ষ হয়। সবশেষ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজ্জাকের সমর্থক জাকির পৌরসভার নওপাড়া মহল্লায় গেলে বাচ্চুর লোকজন তাকে পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল সকালে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

up-arrow