Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০১৬ ২৩:২০
অভিভাবকহীন শ্রীবরদী
শেরপুর প্রতিনিধি

নির্বাচিত বা ভারপ্রাপ্ত মেয়র ছাড়াই অভিভাবকহীন চলছে শেরপুরের শ্রীবরদী পৌরসভা। পরিষদ, কর্মচারী-সবই আছে কিন্তু অভিভাবক না থাকায় ব্যাপক দুর্ভোগে পড়েছেন ৩৫ হাজার পৌরবাসী। বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এ নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন পৌর নাগরিক, কর্মচারীসহ এলাকার লোকজন। জানা যায়, গত ১ এপ্রিল রাতে ইউপি নির্বাচনী সামগ্রীসহ নিজ কার্যালয়ে ফেরার পথে দুর্বৃত্তের হামলার শিকার হন ইউএনও হাবিবা শারমিন ও তার গাড়িচালক। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে জানালে ১৩ এপ্রিল ইসি পৌরসভার ১ নম্বর প্যানেল চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবুকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দিয়ে মেয়র সাঈদকে সাময়িক বরখাস্ত করেন। মেয়রের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আইনে মামলা করে তাকে গ্রেফতারের নির্দেশ দেওয়া হয়। এ ঘটনায় আবু সাঈদ দীর্ঘ দিন পালিয়ে থেকে উচ্চ আদালতে জামিন আবেদন করলে ২০ জুনের মধ্যে তাকে নিম্ন আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। আদালত এ সময় নির্বাচন কমিশনের দেওয়া মেয়র সাঈদের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ বাতিল করেন। এ আদেশ নিয়ে ১৯ এপ্রিল আবারও স্বপদে ফেরেন মেয়র। কিন্তু নির্ধারিত তারিখে হাজিরা দিলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান। পৌরসভা কে চালাবে তার নির্দেশনা না দেওয়ায় ২০ জুন থেকে স্থানীয় সরকারের এই প্রতিষ্ঠানটি অভিভাবকহীন। এ ব্যাপারে পৌরসচিব শরাফত আলী জানান, নিয়মানুযায়ী পৌর কাউন্সিলররা ভারপ্রাপ্ত মেয়রের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন। আমি প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে সরকারের কাছে চিঠি দিতে চাইলে কাউন্সিলরদের বাধার মুখে পারিনি। জেলা প্রশাসক ডা. এএম পারভেজ রহিম জানান, এ ব্যাপারে অভিযোগ পাইনি। ওখানে ভারপ্রাপ্ত মেয়র না থাকলে স্থানীয় সরকারের উপপরিচালককে নির্দেশ দেওয়া হবে আইনগতভাবে মেয়র নির্বাচনের জন্য। মেয়র না থাকলে পরিষদ মিটিং ডেকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র নির্বাচন করবে এটাই আইন। এ ক্ষেত্রে জনভোগান্তি সৃষ্টি করা যাবে না।

up-arrow