Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ২০ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৪৭
চার জেলায় বন্যার অবনতি পানিবন্দী দুই লাখ মানুষ
প্রতিদিন ডেস্ক
চার জেলায় বন্যার অবনতি পানিবন্দী দুই লাখ মানুষ
নীলফামারীতে বাঁধে আশ্রয় নেওয়া বৃদ্ধ —বাংলাদেশ প্রতিদিন

কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নীলফামারী ও সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন এসব জেলার দুই লক্ষাধিক মানুষ। যোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় এবং খাবার ও পানীয় সংকটে চরম দুর্ভোগে দিন কাটছে তাদের। ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে কয়েক দিন ধরে বন্যা হলেও গতকাল পর্যন্ত অনেক জায়গায় পৌঁছেনি কোনো ত্রাণ। এ ছাড়া নদ-নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বগুড়া ও পঞ্চগড়ে দেখা দিয়েছে ভয়াবহ ভাঙন। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

লালমনিরহাট : জেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন তিস্তা ও ধরলার ৬৩ চরের পানিবন্দী লক্ষাধিক মানুষ। রান্নার চুলা ও গভীর নলকূপ ডুবে যাওয়ায় খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট তীব্র হয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকায় পৌঁছেনি ত্রাণসামগ্রী।

নীলফামারী : ডিমলার টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের সাতটি চরের ২ হাজার পরিবারের ৮০ হাজার মানুষ সাত দিন ধরে পানিবন্দী। বন্যার সঙ্গে ওইসব এলাকায় দেখা দিয়েছে নদী ভাঙন। ইতিমধ্যে কয়েকশ ঘরবাড়ি ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নদীগর্ভে চলে গেছে।

ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো সোমবার তিস্তার ক্যাঞ্জার ড্যামে আশ্রয় নিয়েছে। কুড়িগ্রাম : জেলার সব নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন ৫০ হাজার মানুষ। ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, ‘বাড়ির চারদিকে পানি। ঘরেও পানি ঢুকছে। ছেলেমেয়ে ও গবাদিপশু নিয়ে বিপদে আছি। ’

সুনামগঞ্জ : দোয়ারাবাজার উপজেলায় বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে ২০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন কয়েক হাজার মানুষ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : নবীনগর উপজেলার ধরাভাঙ্গা, নূরজাহানপুর, সোনাবালুয়াসহ পাঁচ গ্রামে দেখা দিয়েছে মেঘনার ভয়াবহ ভাঙন। এরই মধ্যে ওইসব গ্রামের বহু কৃষিজমি, ঘরবাড়ি, গাছপালা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বগুড়া : ধুনটে যমুনার পানি বৃদ্ধির ফলে বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ রক্ষায় নির্মিত শহরাবাড়ী স্পারের অগ্রভাগে মাটির তৈরি স্যাংকের প্রায় ৩০ মিটার বিলীন হয়ে গেছে। পঞ্চগড় : পঞ্চগড়-মীরগড় সড়কের সিঅ্যান্ডবি এলাকায় নির্মাণাধীন সেতুর বিকল্প সড়ক ভেঙে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন হাজার হাজার মানুষ। কয়েক দিনের ভারী বর্ষণে সড়কের একাংশ ভেঙে যায়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow