Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:১৬
উপবৃত্তি বিতরণে অনিয়ম
ফরিদপুর প্রতিনিধি

নগরকান্দা উপজেলায় প্রাথমিকে উপবৃত্তির টাকা বিতরণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কতিপয় ব্যাংক কর্মকর্তার যোগসাজশে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকরা ভুয়া মাস্টার রোল তৈরি করে ও নানা খরচের কথা বলে শিশুদের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

এ নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করলেও জড়িত শিক্ষকদের ভয়ভীতির কারণে মুখ খুলতে পারছে না তারা। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে উপজেলায় ৮২টি স্কুলের অনুকূলে উপবৃত্তি বাবদ তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের মোট বরাদ্দ হয়েছে ২ কোটি ৪৪ লাখ ৭০ হাজার ৭৫০ টাকা। জানা যায়, সম্প্রতি উপজেলার ১২টি স্কুলের উপবৃত্তি বিতরণ করা হয়। এর মধ্যে আশফরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মেঘারকান্দী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাস্টার রোল থেকে টাকা কম দেওয়ায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। আশফরদী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, আদুরী নামে এক অভিভাবকের কাছ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকার মাস্টার রোলে স্বাক্ষর নিয়ে তাকে ১ হাজার ১০০ টাকা দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক বলেন, তিনি যে টাকা পাবেন তাই দেওয়া হয়েছে। একই স্কুলের আরেক অভিভাবক জানান, মাস্টার রোলে ৬০০ টাকা থাকলেও তিনি পেয়েছেন ৪০০ টাকা। দায়িত্বে থাকা ব্যাংক কর্মকর্তা ওবায়দুর লস্কর বলেন, ‘শিক্ষকরা যে টাকার কল করেছে আমি তাই দিয়েছি। ’ টাকা কম পাওয়ার এমন অভিযোগ করেন অনেক অভিভাবক।

মেঘারকান্দী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক অভিভাবককে টাকা না দিয়ে বলা হয়েছে আপনার টাকা অন্য কেউ তুলে নিয়ে গেছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক জানান, তার নামে গোল দাগ দেওয়া রয়েছে অর্থাৎ সে টাকা নিয়েছে।

চকরিয়ায় টাকা আত্মসাৎ : চকরিয়া প্রতিনিধি জানান, কক্সবাজারের চকরিয়ার বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে তিনটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপবৃত্তির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow