Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:২৫
জমে উঠেছে পশুহাট দেশি গরু বেশি
প্রতিদিন ডেস্ক
জমে উঠেছে পশুহাট দেশি গরু বেশি
রাজশাহীতে একটি গরুর হাট —বাংলাদেশ প্রতিদিন

ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে বিভিন্ন জেলায় জমে উঠেছে পশুরহাট। ভারতীয় গরুর চেয়ে এবার হাটগুলোতে দেশি গরুই বেশি দেখা যাচ্ছে। দামও বেশ চড়া। তবে ভারত থেকে গরু আমদানি হলে লোকসানের মুখে পড়ার আশঙ্কা করছেন খামারিরা। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর— রাজশাহী : তানোরের মুন্ডুমালা, মান্দার চৌবাড়িয়া, পুঠিয়ার বানেশ্বর এবং গোদাগাড়ীর কাঁকনহাটসহ জেলার সব পশুহাটেই এবার দেশি গরুর আধিক্য। পাশাপাশি ছাগল-ভেড়াও উঠছে হাটে। এরই মধ্যে হাটগুলো জমে উঠেছে। মাঝে মাঝে বৃষ্টি বাগড়া দিলেও তা উপেক্ষা করে ক্রেতা-বিক্রেতার সমাগমে মুখরিত থাকছে হাটগুলো। মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম জানান, হাটজুড়ে লাগানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। কিছু স্থানে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। হাটে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন পুলিশ । সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশও সজাগ দৃষ্টি রাখছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ : ব্যবসায়ীরা বলছেন, সীমান্ত দিয়ে গরু আসা এখন পুরোপুরি বন্ধ। ফলে এবার কোরবানির ঈদে বেশি দামে দেশি গরু কিনতে হবে। বিজিবি বলছে বৈধপথে গরু আনতে কোনো বাধা নেই। তবে কোনো অবস্থায়ই অবৈধ পথে কাউকে সীমান্ত পার হতে দেওয়া হবে না। ভারতীয় গরু না আসায় গরু ব্যবসার সঙ্গে জড়িত এ জেলার প্রায় ১০ হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। ঝিনাইদহ : সদর উপজেলার হাজরা গ্রামের প্রায় শতভাগ কৃষাণ-কৃষাণী প্রাকৃতিক উপায়ে গরু মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। কৃষকদের পাশাপাশি অনেক বেকার যুবকও এ কাজে আত্মনিয়োগ করেছেন। প্রতি বছরই একেকজন কৃষক একাধিক গরু পালন করে সংসারে আনছেন স্বচ্ছলতা। সিরাজগঞ্জ : জেলার বিভিন্ন স্থানে গরু মোটাতাজাকরণ করা হয়েছে। এবার কোরবানির জন্য প্রায় ৩০০ কোটি টাকা মূল্যের তিন লক্ষাধিক গবাদি পশু স্বাভাবিক নিয়মে মোটাতাজাকরণ তবে বন্যার কারণে ঘাসের বদলে বেশি দামে ভূষি কিনে খাওয়াতে খরচ একটু বেশি হয়েছে। তারপরও এসব গরু বিক্রি করে লাভবান হবেন খামারিরা এমনটাই আশা করছেন। তবে ভারত থেকে অবৈধ পথে গরু আমদানি হলে খামারিরা লোকসানের মুখে পড়বেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সাতক্ষীরা : ভারত থেকে আমদানি বন্ধ থাকায় দেশিয় গরুর চাহিদা বেড়েছে সাতক্ষীরায়। সরগরম হয়ে উঠতে শুরু করেছে পশুর হাটগুলো। উজ্জীবিত ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা। জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা সমরেশ চন্দ্র জানান, ভারত থেকে গরু না আসায় কৃষকরা লাভবান হচ্ছেন। তারা গরুর ভালো দাম পাচ্ছেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow