Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:১৮
কালীগঞ্জে ব্যবসায়ী ও নারীকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন
গাজীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুরের কালীগঞ্জে শক্রতার জের ধরে স্থানীয় প্রভাবশালীরা এক ব্যবসায়ীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে শারীরিক নির্যাতনের পর মাথার চুল কেটে দিয়েছে। এরপর অপর এক গৃহবধূর সঙ্গে একত্রে শিকলে বেঁধে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নির্যাতনের শিকার ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রী তাসলিমা ও ভগ্নিপতি মুক্তাজুল ইসলাম জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের মৃত রিয়াজ উদ্দিন সরকারের ছেলে মহসিন সরকার পিকআপভ্যান চালানোর পাশাপাশি আড়ৎ থেকে কঁচাামাল কিনে বিভিন্ন বাজারে পাইকারী বিক্রির ব্যবসা করেন। গত শনিবার সন্ধ্যায় বক্তারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজারের খুচরা বিক্রেতাদের কাছ থেকে পাওনা টাকা আদায় করে মহসিন বাড়ি ফিরছিলেন। পথে ব্রাহ্মণগাঁও মাদরাসা সংলগ্ন রাস্তা থেকে স্থানীয় কয়েক  প্রভাবশালী ব্যক্তি পূর্ব শক্রতার জের ধরে তাকে তুলে নিয়ে যায়। তারা কৌশলে মহসিনকে ওই গ্রামের আলী হোসেনের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বেধড়ক মারধর ও মাথার চুল কেটে ফেলে তারা। এ সময় ওই প্রভাবশালীরা আলী হোসেনের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী মজিদা বেগমকেও মারধর করে। পরে তারা মহসিন ও মজিদার পায়ে এক সঙ্গে শিকল বেঁধে ঘরের ভিতর আটকে দরজায় তালা লাগিয়ে দেয়। এদিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে ভিড় জমান। রবিবার স্থানীয় সাংবাদিকরা তথ্য সংগ্রহের জন্য ঘটনাস্থলে গেলে স্থানীয় ইউপির এক নারী সদস্য লোকজন নিয়ে বাধা এবং হুমকি দেন। এ সময় তারা ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা চালান।   এ ব্যাপারে স্থানীয় বক্তারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ফারুক বলেন, মজিদার বিরুদ্ধে পূর্বের আরও অভিযোগ রয়েছে। তবে তাদের নির্মমভাবে নির্যাতন করে পায়ে শিকল বেঁধে মাথার চুল কেটে ফেলা একটি অমানবিক কাজ। এটি করা ঠিক হয়নি। কালীগঞ্জ থানার ওসি আলম চাঁদ বলেন, এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow