Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫১
কুষ্টিয়ায় বন্যার্তদের দুর্দশা চরমে
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

ঈদ সামনে রেখে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলায় বন্যা, পদ্মার ভাঙনকবলিত এলাকায় মানুষের দুর্দশা চরমে পৌঁছেছে। খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে এসব দুর্গত মানুষের।

প্রায় ১৫ দিন আগে উজান থেকে নেমে আসা পানিতে বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে দৌলতপুর উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারি ইউনিয়নের ৩৩টি গ্রাম। এতে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েন। বন্যার পানি নামতে শুরু করলেও এখনো অনেক বাড়িঘরে পানি রয়েছে। এদিকে শুরু হয়েছে তীব্র নদী ভাঙন। চিলমারি ইউনিয়নের উদয়নগর, আতারপাড়া, ভবনন্দদিয়ার গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এসব গ্রামের ৩০০ পরিবার তাদের বাড়িঘর হারিয়েছে। আতারপাড়া এলাকার বাসিন্দা আতিয়ার রহমান ও সোহরাব জানান, ‘ভাই আমরা সব হারিয়েছি। কেউ আমাদের পাশে দাঁড়ায়নি। ভোটের সময় নেতারা আসলেও এখন কেউ খোঁজ রাখে না। তারা বলেন, এখন খেয়ে না খেয়ে আমাদের দিন কাটছে। ছেলে-মেয়ে নিয়ে কি করব বুঝে উঠতে পারছি না। ’ উদয়নগর এলাকার বাসিন্দা রোমেজা ও আলেয়া জানান, ‘আমরা কষ্টের মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। কেউ সাহায্য করছে না। এমপি সাহেব ও তাদের লোকজন একটিবারের জন্যও খোঁজ নেয়নি। ঈদ করতে পারব কি-না জানি না। চিলমারি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সেলিম রেজা জানান, এমপি এলাকার মানুষের খোঁজ খবর রাখেন না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow