Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫৮
উপবৃত্তির টাকায় স্কুলে ল্যাট্রিন!
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে সরকার উপবৃত্তির টাকা দিলেও সেই টাকা থেকে জোর করে কেটে নিয়ে তা দিয়ে ল্যাট্রিন নির্মাণ করা হচ্ছে। এমন অভিযোগ উঠেছে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার পয়লা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে অভিভাবক-ছাত্রছাত্রীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। জানা যায়, পয়লা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩৩২ ছাত্র-ছাত্রীর জন্য দুই লাখ ৭৩ হাজার ৩৬০ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। গত সোমবার মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা স্কুলে গিয়ে এ টাকা বিতরণ করেন। শিক্ষা কর্মকর্তার কাছ থেকে টাকা নিয়ে শিক্ষার্থীরা অফিসকক্ষ থেকে বের হওয়ামাত্র প্রধান শিক্ষক আনিসুর রহমান, শিক্ষক হেলাল উদ্দিন ও মোখলেস তাদের কাছ থেকে স্কুলে ল্যাট্রিন নির্মাণ করার কথা বলে জোর করে ১০০-২০০ টাকা নিয়ে নেন। যারা দিতে অস্বীকার করেছে তাদের পরবর্তীতে উপবৃত্তির তালিকা থেকে বাদ দেওয়ারও হুমকি দেন। কয়েক শিক্ষার্থী জানায়, প্রথমে আমাদের পুরো টাকাই দেওয়া হয়। পরে স্যাররা স্কুলে টয়লেট নির্মাণের কথা বলে এক-দু’শ টাকা করে জোরপূর্বক নিয়ে নেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল কাদের জানান, শিক্ষা অফিসার ঠিকই টাকা দিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষকরা পরে রাস্তায় আটকিয়ে ছাত্রছাত্রীর কাছ থেকে টাকার একটি অংশ নিয়ে যান। এভাবে রাস্তার মধ্যে হেনস্থা করে টাকা নেওয়ায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিযুক্ত শিক্ষকদের শাস্তির দাবি জানান। তবে প্রধান শিক্ষক আনিসুর রহমান বলেন, ‘কাউকে চাপ দেওয়া হয়নি। স্কুলের টয়লেট নির্মাণে সামর্থ্য অনুযায়ী সহায়তা করার বিষয়ে বলা হয়েছিল।

যে যেভাবে পারে উপবৃত্তির টাকা থেকে কিছু দিয়ে গেছে।’ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেম ওবায়েদ জানান, আমরা প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীর হাতে পুরো টাকা দিয়েছি। শিক্ষকরা বাইরে থেকে টাকা নিয়েছে কিনা জানা নেই। ছাত্রছাত্রী বা অভিভাবকের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow