Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১৬
রাজশাহীতে মিলছে না জঙ্গি করিমের সন্ধান
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

ঢাকার আজিমপুরে শনিবার রাতে পুলিশের অভিযানে নিহত জঙ্গি করিমের পরিচয় নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। অভিযানের পর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি) জানায়, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) অনুযায়ী, করিমের আসল নাম মো. শমসেদ উদ্দিন। বাবার নাম মোসলেহ উদ্দিন। বাড়ি রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার মেহেরচণ্ডী এলাকায়।

সিটিটিসি জানায়, শমসেদ উদ্দিনের সাংগঠনিক নাম আবদুল করিম। জাতীয় পরিচয়পত্রে তার ঠিকানার জায়গায় লেখা, ৬৩০ নম্বর রাজশাহী সিটি করপোরেশন, বোয়ালিয়া, রাজশাহী। শমসের উদ্দিনের এনআইডি নম্বর- ৮১৯২২২৬৩৩৯১৫৩। তবে সিটিটিসির দেওয়া পরিচয় নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছে। রাজশাহীর পুলিশ জঙ্গি করিমের এ ঠিকানা নিশ্চিত হতে পারেনি। মেহেরচন্ডী এলাকার কোনো বাসিন্দাও তার পরিচয় বলতে পারেননি। সরেজমিন গিয়ে গতকাল মেহেরচন্ডী মধ্যপাড়া, উত্তরপাড়া, দক্ষিণপাড়া ও পূর্বপাড়ায় খোঁজ করেও জঙ্গি করিমের সেই ৬৩০ নম্বর বাড়িটি খুঁজে পাওয়া যায়নি। মেহেরচন্ডী রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) ২৬ নম্বর ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফকির মোল্লা জানান, গতকাল ভোর থেকেই পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা জঙ্গি করিমের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার জন্য ভিড় করছেন। কিন্তু তিনি করিমের পরিচয় নিশ্চিত নন। তবে তার কাছে সংরক্ষিত ওই ওয়ার্ডের ভোটার তালিকায় এক ব্যক্তির সঙ্গে জঙ্গি করিমের জাতীয় পরিচয়পত্র মিলেছে। তার নাম মো. জামসেদ হোসেন। বাবা মরহুম মোছলেম উদ্দিন ও মা মোসা. রেনুয়ারা বেগম। তার ঠিকানা মেহেরচন্ডী পূর্বপাড়া। তবে এই জামসেদ হোসেন কে তা নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। পুরো মেহেরচন্ডী এলাকার কেউ তাকে চিনতে পারছেন না। ফকির মোল্লা বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে জঙ্গি করিমের হোল্ডিং নম্বর ৬৩০ বলা হলেও তার ওয়ার্ডে হোল্ডিংয়ের সংখ্যা ৫৫০ এর বেশি হবে না।  রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম বলেন, ‘জঙ্গি করিমের রাজশাহীর ঠিকানা নিশ্চিত হতে পুলিশ দিনভর কাজ করেছে। কিন্তু তার ঠিকানা উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি। সম্ভবত জঙ্গি করিম বাসা ভাড়া নেওয়ার সুবিধার জন্য একটি ফেইক (ভূয়া) পরিচয়পত্র বানিয়েছিল, যেটা পুলিশ উদ্ধার করেছে।’ নগর গোয়েন্দা পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার সুশান্ত চন্দ  রায় বলেন, করিমের বাড়ি রাজশাহী-এমন কথা শোনার পর থেকেই তার পরিচয় নিশ্চিত হতে তারা কাজ করছেন। কিন্তু গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত তারা বিষয়টি নিশ্চিত হতে পারেননি। তবে এ বিষয়ে অনুসন্ধান চলবে। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া মাত্রই গণমাধ্যমকে জানানো হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow