Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:২০
ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কালোবাজারে
দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুর থেকে ঢাকা রুটের ট্রেনের অগ্রিম টিকিটের লম্বা লাইনে দাঁড়িয়েও অনেকে টিকিট পাননি। অথচ টিকিট কাউন্টারের বাইরে বিক্রি হচ্ছে বেশি দামে।  শোভন চেয়ারের টিকিট কালোবাজারে দাম নিচ্ছে বিভিন্ন জনের কাছে বিভিন্ন দামে। জানা যায়, প্রতিদিন স্থানীয় টিকিট কালোবাজারিদের একটি চক্র এক থেকে ১০ পর্যন্ত সিরিয়াল দখল করে ৩/৪টি করে টিকিট  কেনে। তাদের দেওয়ার পর যে কয়টি টিকিট থাকে তাই সাধারণ টিকিট প্রত্যাশীদের কাছে বিক্রি করা হয়। আর যারা টিকিট পান না তারা কালোবাজারিদের কাছ থেকে চড়া দামে টিকিট কিনতে বাধ্য হন। রবিবার স্টেশন চত্বর এলাকায় চড়া দামে বিক্রি করে এমন একজন মিলন দুটো টিকিট বিক্রিতে দাম চাইল ১ হাজার ৩০০ টাকা । কালোবাজারিরা প্রতি টিকিটে নেওয়া হয় ১০০ থেকে ৩০০ টাকা বেশি।

মিলনের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা দুইটা টাকার আশায় দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে  থেকে টিকিট কিনে পরে বেশি দামে বিক্রি করি। কিন্তু এ টাকার কিছু অংশ স্টেশনের কয়েকজনকে দিতে হয়। সব মিলিয়ে অল্প কিছু টাকা থাকে।’ দিনাজপুর স্টেশন মাস্টার  গোলাম মোস্তফা রেল কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করে বলেন, টিকিট কালোবাজারি হচ্ছে এমন অভিযোগ পেলে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, এবার ঢাকা-দিনাজপুর রুটে আন্তঃনগর একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস  ট্রেন দুটিতে ২৫০টি করে আসন বরাদ্দ রয়েছে। এর মধ্যে ৫০টি এসি চেয়ার, ২০০টি শোভন চেয়ার ও একটি করে এসি বাথ বরাদ্দ রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow