Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৭
‘মোগো কপালে ঈদ উৎসব জোটেনি’
আমতলী প্রতিনিধি
‘মোগো কপালে ঈদ উৎসব জোটেনি’
ঈদের আগে ভাতা না পাওয়া ১১৩ বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

‘মোগো কপালে ঈদ উৎসব জোটেনি। ’ এ কথা বলেছেন ১৮ বছরের প্রতিবন্ধীর পিতা গনি শরীফ।

এ আর্তি বরগুনার আমতলী উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের ১১৩ জন প্রতিবন্ধী, বয়স্ক ও বিধবার। এক বছর যাবৎ তাদের ভাতার টাকা পাচ্ছেন না। জানা গেছে, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নে ৪৪ প্রতিবন্ধী, ৪৪ বয়স্ক ও ২৫ জন বিধবার ভাতা বরাদ্দ হয়। তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ১১৩ প্রতিবন্ধী, বয়স্ক ও বিধবার ভাতার তালিকা করে সমাজসেবা অফিসে জমা দেন। ওই তালিকা যাছাই-বাচাই শেষে উপজেলা কমিটি অনুমোদন দেয়। সে অনুসারে সমাজসেবা অফিস প্রতিবন্ধী, বয়স্ক ও বিধবাদের নামে বই ও ব্যাংক হিসাব খোলে। গত বছর জুলাই থেকে এ বছর জুলাই পর্যন্ত এক বছরের ভাতার টাকা সমাজসেবা অফিসার ও ইউএনওর যৌথ স্বাক্ষরে উপকারভোগীদের ব্যাংক হিসাবে জমা হয়। এ টাকা তুলতে গেলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। ঈদের দুই দিন আগেও ব্যাংকে এসে ভাতার টাকা না পাওয়ায় হতদরিদ্র পরিবারগুলোর ঈদ উৎসব ম্লান হয়ে গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ বছর ফেব্রুয়ারিতে ইউপি নির্বাচনে আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নে এ কে এম নুরুল হক চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি দায়িত্বভার গ্রহণের পর ওই তালিকার ওপর আপত্তি জানিয়ে তিনি আরেকটি তালিকা সমাজসেবা অফিসে জমা দেন। তার তালিকা অনুযায়ী ভাতার বই না হওয়ায় তিনি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে টাকা দিতে আপত্তি জানিয়ে আবেদন করেছেন।

আমতলী উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মু. অলিউল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বিধবা, প্রতিবন্ধী ও বয়স্ক ভাতার তালিকা সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ দায়িত্বে থাকাকালে উপজেলা কমিটির কাছে জমা দিয়েছেন। উপজেলা কমিটি ওই তালিকা অনুমোদন করায় উপকারভোগীদের নামের অনুকূলে বই ও ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে এবং উপকারভোগীদের স্ব-স্ব হিসাবে ভাতার টাকা জমা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, নবাগত চেয়ারম্যান এ কে এম নুরুল হক উপজেলা কমিটির অনুমোদন ছাড়া একটি তালিকা জমা দিয়েছেন। এর কোনো আইনগত ভিত্তি নেই। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ভাতার টাকা না দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ব্যাংক কর্তৃপক্ষ টাকা প্রদানে বাধ্য। কী কারণে টাকা দিচ্ছে না তা আমার বোধগম্য নয়। ’ আড়পাঙ্গাশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম নুরুল হক মুঠোফোনে বলেন, ‘আমতলীর সাত ইউনিয়নের ছয়টির নতুন তালিকা উপজেলা কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। শুধু আমার ইউনিয়নের ক্ষেত্রে সাবেক চেয়ারম্যানের তালিকা অনুমোদন করা বেআইনি বলে আমার কাছে প্রতীয়মান হয়। ’ আমতলী সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক এবাদুর রহমান বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম নুরুল হক ভাতার টাকা বিতরণে আপত্তি জানানোয় বন্ধ রাখা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow