Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৯
মার্কেটে যাওয়ার সুবিধার জন্য ভাঙা হলো স্কুলের দেয়াল
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
মার্কেটে যাওয়ার সুবিধার জন্য ভাঙা হলো স্কুলের দেয়াল
ভেঙে ফেলা স্কুলের দেয়াল —বাংলাদেশ প্রতিদিন

নিজ মার্কেটে যাতায়াতের সুব্যবস্থা করতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলেছেন প্রভাবশালীরা। ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আল্লারদর্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এতে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হলেও তারা মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। জানা যায়, স্থানীয় নাহারুল ইসলাম মিনু সম্প্রতি বিদ্যালয়টির সীমানা প্রাচীর ঘেঁষে মার্কেট নির্মাণ করেন। কিন্তু এ মার্কেটে যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটি সরু। এ কারণে নবনির্মিত ওই মার্কেটে কেউ দোকান ভাড়া নিতে রাজি হচ্ছে না। ৮ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় ঈদের ছুটি হয়। ১০ সেপ্টেম্বর রাতে মার্কেটের সামনের অংশে বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীরের প্রায় ২০ ফুট অংশ ভেঙে ফেলেন মিনু। এ ব্যাপারে নাহারুল ইসলাম মিনু বলেন, ‘ভাই আমি তো দেয়াল ভাঙিনি, ভেঙেছেন স্থানীয় এমপি রেজাউল হক চৌধুরীর ছেলে কলিন্স চৌধুরী।’ মিনুর দাবি, একই এলাকায় কলিন্স চৌধুরীর একটি মার্কেট থাকায় সেখানে যাতায়াতের সুব্যস্থার জন্য তিনি (কলিন্স চৌধুরী) বিদ্যালয়ের দেয়াল ভেঙে ফেলেছেন। তবে কলিন্স চৌধুরী এ অভিযোগ অস্বীকার করেন। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা নাহিদা আক্তার বলেন, ‘৮ তারিখে বিদ্যালয় ছুটি হয়ে গেছে। তাই দেয়াল ভাঙার ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না।’ দৌলতপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নুল আবেদিন জানান, এ ব্যাপারে তার কিছু জানা নেই। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। প্রসঙ্গত, বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার সময় জমির পরিমাণ প্রায় সাড়ে তিন বিঘা থাকলেও পরে বেদখল হতে হতে তা তিন বিঘার নিচে নেমে আসে। পরে, জমি রক্ষার লক্ষ্যে ১৯৯৬ সালে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়। সেই প্রাচীর ভেঙে ফেলায় নতুন করে জমি বেদখলের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow