Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৬
এক দিনেই যমুনায় বিলীন ২০০ মিটার এলাকা
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
এক দিনেই যমুনায় বিলীন ২০০ মিটার এলাকা
যমুনা নদীতে বিলীন হচ্ছে বসতবাড়ি —বাংলাদেশ প্রতিদিন

সিরাজগঞ্জর সদর উপজেলার পাঁচঠাকুরী পয়েন্টে যমুনা নদীর ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। শনিবার দিবাগত রাত থেকে গতকাল বিকাল পর্যন্ত নদীতে বিলীন হয়েছে প্রায় ২০০ মিটার এলাকা।

অব্যাহত এ ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেওয়া তো দূরের কথা, পাউবোর কোনো কর্মকর্তা কবলিত এলাকায় পা পর্যন্ত রাখেননি। এ নিয়ে নদীতীরের মানুষের মধ্যে বিরাজ করছে ক্ষোভ। সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্রে জানা যায়, যমুনার ভাঙন থেকে পাঁচঠাকুরী এলাকায় রক্ষায় ২০১৪ সালে প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে তীররক্ষা বাঁধ নির্মাণ করেন। ওই কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় ২০১৫ সালের বন্যায় বাঁধটি ভেঙে যায়। এরপর থেকে সেটি আর মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এ অবস্থায় চলতি বছরের বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই পাঁচঠাকুরী পয়েন্টে ভাঙন শুরু হয়। সে সময় পাউবো জিওব্যাগ ফেলে ভাঙন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। কিন্তু গত শনিবার রাত থেকে ওই এলাকায় পুনরায় ভাঙন শুরু হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা রুখসানা ও সাহেরা জানান, ছেলে-মেয়ে নিয়ে নির্ঘুম রাত কাটাই। কখন যে নদী সব কেড়ে নেবে এ শঙ্কায় থাকি সবসময়। তাদের দাবি, সরকারের কাছে আর কিছু না, শুধু নদীভাঙন রোধে যেন ব্যবস্থা নেয়-এটিই আমাদের দাবি। নদীপাড়ের এসব মানুষের অভিযোগ, সরকার ঠিকই বরাদ্দ দেয় কিন্তু পাউবোর কর্তারা সঠিকভাবে কাজ করে না। নামমাত্র কাজ দেখিয়ে সব টাকা লুটপাট করে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী রণজিত কুমার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, শনিবার রাতে থেকে যে ভাঙন শুরু হয়েছে সে বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষককে জানানো হয়েছে। নির্দেশ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

up-arrow