Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩০
আ.লীগ নেতার নির্দেশে একঘরে ১০ পরিবার
ইউপি নির্বাচনে পরাজয়ের জের
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বালিজুরি নয়াহাটি গ্রামে শালিসের নামে ১০টি পরিবারকে ১৫ দিন ধরে একঘরে করে রেখেছেন প্রভাবশালীরা। এই সিদ্ধান্তের পর থেকে ভয়ে পরিবারগুলোর সঙ্গে সব ধরনের সামাজিক ও অর্থনৈতিক যোগযোগ বন্ধ করে দিয়েছেন প্রতিবেশীরা। এতে নানা হয়রানি ও ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন ওইসব পরিবারের সদস্যরা। এ অবস্থার উত্তোরণ চেয়ে ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করা হয়েছে। জানা যায়, বিগত ইউপি নির্বাচনে ভোট না দেওয়ায় বালিজুরি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের পরাজিত প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমানের সঙ্গে নয়াহাটি গ্রামের জিল্লুুর রহমানের স্বজনদের বিরোধ দেখা দেয়। এর জের ধরে গত ১৭ সেপ্টেম্বর উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে জিল্লুরের ভাই শামসুর, আজিজুর ও আজিজুরের স্ত্রী গুরুতর আহত হন। বর্তমানে তারা সিলেট ওসমানী মেডিকেলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সংঘর্ষের ঘটনায় ১৯ সেপ্টেম্বর জিল্লুর রহমান তাহিরপুর থানায় মামলা করেন। আসামি করা হয় আতাউর রহমান পক্ষের ১৪ জনকে। এতে আতাউর ক্ষিপ্ত হন এবং শালিস ডেকে জিল্লুর রহমান পক্ষের ১০ পরিবারকে একঘরে করার সিদ্ধান্ত দেন। এ ব্যাপারে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আতাউর রহমানের সঙ্গে যোগযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। বালিজুরি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুজ জহুর বলেন, ‘একঘরে করে রাখার ঘটনাটি আমি শুনেছি। এ ধরনের কর্মকাণ্ড মানবাধিকারের লঙ্ঘন। বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলব।’ তাহিরপুরে ইউএনও (ভারপ্রাপ্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘দরখাস্তটি এখনো আমার হাতে এসে পৌঁছায়নি। দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow