Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:১০
রাঙামাটিতে ভবন ধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
রাঙামাটি প্রতিনিধি

রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে ধসে পড়া ভবন থেকে আরও এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ নিয়ে ওই ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে পাঁচজনে দাঁড়িয়েছে।

নিহতরা হলেন— জাহিদ (৪০), তার মেয়ে পিংকি (১৩) এবং উম্মে হাবিবা (২২), সামাদ (১২) ও সাজিদুল (৭)। গতকাল সকালে সাজিদুলের মরদেহ উদ্ধারের পর উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন নৌ-বাহিনীর কাপ্তাই শহীদ মোয়াজ্জেম ঘাঁটির কমান্ডার লে. কর্নেল রাইয়ান আল বেরুনী। তিনি জানান, ধসে পড়া ভবনে আর কেউ আটকে থাকার আশঙ্কা নেই নিশ্চিত হওয়ার পর অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। গতকালই পাঁচজনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালের আরএমও মং কিয়ু চিং সাগর জানান, যেসব মরদেহ হাসপাতালে আনা হয়েছিল তাদের সবাই পানিতে দমবন্ধ হয়ে মারা গেছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, কাপ্তাই লেক দখল করে পানির ওপর দোতলা পাকা বাড়িটি নির্মাণ করেন স্থানীয় ঠিকাদার টিটু। এরপর একাধিক পরিবারকে ভাড়া দেন। সম্প্রতি কাপ্তাই হ্রদে পানি বাড়ায় ভবনের মাটির চারপাশে ফাটল দেখা দেয়। তারপরও ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছিল চার পরিবার। জেলা প্রশাসক মানজারুল মান্নান জানান, কাপ্তাই হ্রদ তীরবর্তী যেসব ভবন রয়েছে তার তালিকা তৈরির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পৌর মেয়রকে। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো চিহ্নত করার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোয়াজ্জেম হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বিকালে রাঙামাটি শহরের সরকারি মহিলা কলেজ এলাকার একটি দোতলা ভবন ধসে কাপ্তাই হ্রদে পড়ে যায়। এ সময় ভবনের ভেতর অবস্থান করছিল চারটি পরিবারের আট সদস্য। খবর পেয়ে উদ্ধার অভিযানে নামে ফায়ার সার্ভিস, সেনাবাহিনী, পুলিশ ও বিজিবি। এ সময় তিনজনকে জীবিত ও চারটি মৃতদেহ উদ্ধার করেন তারা। নিখোঁজ ছিল এক শিশু।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow