Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩১
নোয়াখালীতে ‘মিড ডে মিল’ কর্মসূচিতে ব্যাপক সাড়া
নোয়াখালী প্রতিনিধি

‘দুপুরের খাবার স্কুলে খাব, রোগমুক্ত জীবন গড়ব’ এই স্লোগান সামনে রেখে নোয়াখালীর প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে চালু হওয়া দুপুরের খাবার কর্মসূচি (মিড ডে মিল) ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। এ কর্মসূচি চালুর ফলে শিক্ষার্থী ঝরেপড়া রোধ, শ্রেণিকক্ষে পাঠে মনোযোগ এবং পরীক্ষায় শতভাগ উত্তীর্ণসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন এসেছে। এ কথায় জেলায় মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করছে এই কর্মসূচি। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন সিদ্দিকী জানান, বর্তমানে নোয়াখালীর ৯ উপজেলায় এক হাজার ২৭৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে এক হাজার ১৫২টিতে দুপুরের খাবার কর্মসূচি চালু রয়েছে। এই কর্মসূচিকে সফল করে তুলতে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা পর্যায়ে এবং ইউএনওর নেতৃত্বে উপজেলা পর্যায়ে নয়টি মনিটরিং টিম কাজ করে যাচ্ছে। জেলা প্রশাসক বদরে মুনির ফেরদৌস জানান, দুপুরের খাবার কর্মসূচির ফলে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার হার ১৩ থেকে চার ভাগে নেমে এসেছে। শ্রেণিকক্ষে পাঠে মনোযোগ বেড়েছে, বেড়েছে পাসের হার। সরেজমিন বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নোয়াখালীর হতদরিদ্র পরিবারের অনেক শিশু এক সময় কিছু না খেয়ে বিদ্যালয়ে আসত। এতে শ্রেণিকক্ষে পাঠে তাদের মনোযোগ থাকত না। মধ্যাহ্ন বিরতির সময় স্কুলপালানোর প্রবণতা ছিল। কেউ কেউ আবার বাইরের খাবার খেয়ে পেটের পিড়াসহ নানা রোগে ভুগত। বিষয়গুলো নজরে আসার পর ২০১৫ সালের প্রথম দিকে পরীক্ষামূলকভাবে সুবর্ণচরের বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দুপুরে খাবার কর্মসূচি চালু করা হয়। পর্যায়ক্রমে ছড়িয়ে দেওয়া হয় পুরো জেলায়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow