Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৫৮
নারী নির্যাতন মামলা দিয়ে স্বামীর বাড়ি দখল
টাঙ্গাইল প্রতিদিন

নারী নির্যাতন মামলায় স্বামী, শাশুড়িসহ সবাইকে আসামি করে পুলিশি ধাওয়ার উপর রেখে শ্বশুরবাড়ি দখল করে নিয়েছেন এক গৃহবধূ। দুই পৌর কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে তালা ভেঙে গতকাল বাড়ির দখল নেন বাদী ফাতেমাতুজ জোহুরা।

ঘটনাটি ঘটে সকালে টাঙ্গাইল পৌর এলাকার বিশ্বাস বেতকা গ্রামে।

মামলার আসামি শাহীন খন্দকার জানান, ১২ বছর আগে টাঙ্গাইল পৌর এলাকার সাবালিয়া গ্রামের নুরুন্নবীর মেয়ে ফাতেমাতুজ জোহুরার সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ৯ ও ৩ বছরের দুটি সন্তান রয়েছে। শাহীন বেতকায় পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া সাত শতাংশ জমিতে একটি তিনতলা ভবন নির্মাণ করেন। দ্বিতীয় তলায় এক পাশে শাহীন পরিবার নিয়ে ও অন্যপাশে তার মা প্রবাসী ভাইয়ের স্ত্রী বসবাস করেন। জোহুরা স্বামীকে ওই সাত শতাংশ জমি তার নামে লিখে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়ে আসছিল। এ নিয়ে প্রায়ই ঝগড়া হতো। এর জেরে গত ২২ সেপ্টেম্বর জোহুরা টাঙ্গাইল মডেল থানায় নারী নির্যাতন মামলা করেন। আসামি করা হয়— স্বামী শাহীন, শাশুড়ি রওশন আরা ও জা লিপিকে। গ্রেফতার এড়াতে শাহীনসহ পরিবারের সদস্যরা বাড়িঘর ছেড়ে পালাতক রয়েছেন। এ অবস্থায় গতকাল জোহুরা তার বাবা নুরুন্নবী ও ভাইসহ ৭/৮ জনকে নিয়ে শাহীনের ঘরের তালা ভেঙে বাড়িতে উঠেন। এ সময় টাঙ্গাইল পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ হুমায়ুন এবং বাবুলও উপস্থিত ছিলেন। বাড়ির ভাড়াটিয়া সাজিদা জানান, সকাল ১০টার দিকে একদল লোক দোতলার শাহীন ভাইয়ের কক্ষের তালা ভাঙে। আমরা ভয়ে সামনে যাইনি।

কাউন্সিলর আব্দুল্লাহ হেল ওয়ারেজ বলেন, ‘আমি বিষয়টি সম্পর্কে অতো জানিনা। সকালে পৌরসভায় যাওয়ার পথে ওই এলাকায় হইচই দেখে এগিয়ে গিয়েছিলাম। ’ বাদী ফাতেমাতুজ জোহুরা বলেন, ‘আমার স্বামী-শাশুড়িসহ সবাই পলাতক। পুলিশের পরামর্শ নিয়ে দুই কাউন্সিলের উপস্থিতিতেই তালা ভেঙে বাড়িতে উঠেছি। ’ টাঙ্গাইল মডেল থানার এসআই নুরুল বাশার জানান, বাদী জানিয়েছিলেন স্বামী তাকে বাড়িতে উঠতে বলেছেন। পরে শুনলাম তিনি তালা ভেঙে ঘরে ঢুকেছেন। মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow